স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি: রাজ্যে এনআরসি চালু হওয়ার আশঙ্কাতে ময়নাগুড়ির বাসিন্দা অন্নদা রায় নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছেন৷ এই ঘটনার জন্য বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেই দায়ী করলেন সি পি এম নেতা তথা প্রাক্তন সাংসদ মহম্মদ সেলিম। শনিবার বিকেলে জলপাইগুড়ি রবীন্দ্রভবনের মাঠে জনসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন,আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে দিলীপ ঘোষকে গ্রেফতার করা উচিত৷

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ময়নাগুড়ি বড়কামাত এলাকার বাসিন্দা অন্নদার মোট চার বিঘা জমি ছিল। নিজের জমিতেই কৃষিকাজ করে সংসার চালাতেন তিনি। কিন্তু সেই জমির প্রয়োজনীয় নথি তাঁর হাতে ছিল না। তাই বেশ কয়েকদিন থেকেই জমি হারানোর ভয় ঢুকে গিয়েছিল তাঁর মধ্যে। শুক্রবার সকালে বাড়ির কাছেই রেল গেটের মধ্যে গামছা দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

সেলিম বলেম, “ময়নাগুড়ি অন্নদা রায় সহ আরো বেশ কয়েকজন এন আর সি গুজবে আত্মঘাতী হয়েছেন। এই গুজব ছড়াচ্ছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। প্রতিদিন তিনি বিভিন্ন সভায় বলে বেড়াচ্ছেন ২ কোটি মানুষ কে বাংলা থেকে তাড়াবো। রাজ্য সরকারের উচিত তার বিরুদ্ধে নির্দিষ্ট ধারায় মামলা রুজু করা ৷”

রাজীব কুমার প্রসঙ্গে সেলিম বলেন, “ছোট থেকে তো আপনারা অনেক গোয়েন্দা গল্প পড়েছেন। স্বপন কুমার বা আগাথা ক্রিস্টি এরা তো বিভিন্ন রহস্য উন্মোচন করতো।কোনোদিন শুনেছেন গোয়েন্দা প্রধান নিজে উধাও হয়েছে। এ রাজ্যে তা হয়। তবে তিনি কোথায় আছেন তা রাজ্য ও কেন্দ্র উভয়েই জানে। তবে রাজীব কুমার এর উচিত জলদি বাইরে এসে রহস্য উন্মোচন করা।”

যাদবপুর প্রসঙ্গেও মুখ খোলেন সেলিম৷ তিনি বলেন, “ওখানে বাবুল সুপ্রিয় সেদিন নাটক করছিলো। তাকে ঘিড়ে আরো নাটক করেছে রাজ্যপাল। আমি আক্রান্ত এই নাটক আগে করতো মমতা ব্যানার্জী। এখন তার জমানায় অভিযুক্তরা বেকসুর খালাস পায়। নাটক দেখে আমি সেদিন ছাত্র ছাত্রী দের দেওয়া ভিডিও গুলি টুইট করেছিলাম। কারন জাতীয় মিডিয়া একপেশে নিউজ পরিবেশ করছিলো। তাই আমি একপেশে নয় ভিন্নমতও আছে সেটাকে প্রতিষ্ঠিত করতে ভিডিও টুইট করেছি।”

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে সঙ্ঘ পরিবারের ছাত্র সংগঠন এবিভিপির অনুষ্ঠানে গিয়ে একদল অতি বামপন্থী পড়ুয়ার প্রবল বিক্ষোভের মুখে পরেন বাবুল। ‘গো ব্যাক’ স্লোগান শুধু শোনেননি, বিক্ষোভকারীদের হাতে কিল, চড়, ঘুসিও খেয়েছেন। প্রায় সাড়ে ছ’ ঘণ্টা আটকে থাকার পর রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর গিয়ে তাঁকে উদ্ধার করেন৷