স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নাগরিকপঞ্জিতে নাম না থাকা ভারতীয় নাগরিকদের বিদেশে পাঠালে দেশজুড়ে আন্দোলন শুরু হবে৷ শনিবার এই হুঁশিয়ারি দিয়েছে এরাজ্যের সিপিএম নেতৃত্ব৷ এদিন আলিমু্দ্দিন স্ট্রিটে সাংবাদিক বৈঠক ডেকে মোদী সরকারের কড়া সমালোচনা করেছেন সিপিএম নেতা মহঃ সেলিম৷

তিনি বলেন, “অসমের মানুষের ঐক্য ভাঙার খেলায় নেমেছে বিজেপি । অহমিয়া এবং অ-অহমিয়াদের মধ্যে বিভেদ তৈরির জন্য নাগরিকপঞ্জিকে ব্যবহার করছে কেন্দ্রীয় সরকার । বাঙালি হিন্দুদের নাগরিক হিসেবে স্বীকৃতি এবং বাঙালি মুসলিমদের বাংলাদেশে তাড়ানোর মধ্যে দিয়ে বিজেপির মানসিকতা স্পষ্ট হয়ে যায় যে তারা বিভেদের রাজনীতি করছে।” এরপরই আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন সেলিম৷

আজ, প্রতিবেশী রাজ্য অসমে জারি হয়েছে এনআরসি চূড়ান্ত তালিকা। বাদ পড়েছে ১৯ লক্ষের বেশি মানুষের নাম।এনআরসির চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশিত হওয়ার পর বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছে অধিকাংশ বিরোধী দল৷ সেলিম বলেন, “কিছুদিন ধরে জাতীয় নাগরিকপঞ্জির নামে যা চলছে তা অসংখ্য মানুষের আশঙ্কার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ সংসদের ভেতরে এবং বাইরে প্রচুর মানুষ আশঙ্কায় রয়েছেন । দেশের সরকার মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। অসমসহ গোটা দেশের মানুষ আজ বিপন্ন। নাগরিকপঞ্জি নিয়ে দেশের মানুষকে মানবিক আঘাত করছে দেশের সরকার। মানুষকে মানুষ হিসেবে না দেখে, তাঁর কাছে কী তথ্য আছে তা জানতে চাওয়া হচ্ছে। বিষয়টি চূড়ান্ত অমানবিক। গরিব মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছে দেশের সরকার।”

তাঁর প্রশ্ন, “সেই সমস্ত মানুষের কী হবে যাদের নিজেদের রুটি-রুজির জন্য এক জায়গা থেকে অন্য জায়গা যেতে হয়? প্রাকৃতিক দুর্যোগ, বন্যায় যাদের বাড়িঘর ভেসে গেছে তাঁরা কোথায় পাবেন নাগরিকত্বের তথ্য?”

এদিন বর্ধমানের সভায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জানিয়েছেন, সুযোগ পেলেই পশ্চিমবঙ্গে চালু করা হবে জাতীয় নাগরিক পঞ্জী (এনআরসি)৷ তাঁর হুঁশিয়ারি- বাংলাদেশি হিন্দুরা স্বাগত, অনুপ্রবেশকারী মুসলমানদের ঠাঁই নেই। তাঁর মন্তব্য নিয়ে পাল্টা সরব হয়েছেন সিপিআইএম নেতা মহম্মদ সেলিম।

অসম আর পশ্চিমবঙ্গের পরিস্থিতি যে এক নয় সেটা দিলীপ ঘোষকে মনে করিয়ে দিয়েছেন সেলিম। তিনি বলেন, ‘অসমে এনআরসি প্রযোজ্য হওয়াতে অনেক বিজেপি নেতাই খুশি নন, দিলীপ বাবু এসব মাথায় রাখুন’৷