নয়াদিল্লি: ভোট শেষ। ফলাফল সামনে আসতে বেশি দেরি নেই। এবার ভোট পরবর্তী সমীকরণের খেলা শুরু হয়ে যাবে।

বিরোধী জোটের ভিত শক্ত করতে শনিবারই রাহুল, অখিলেশ ও মায়াবতীর সঙ্গে দেখা করেছেন অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী তথা টিডিপি নেতা চন্দ্রবাবু নাইডু। এবার রাহুল ও সোনিয়ার সঙ্গে দেখা করতে চলেছেন মায়াবতী। সোমবারই কংগ্রেস হাই কমান্ডের সঙ্গে দেখা করবেন বিএসপি সুপ্রিমো।

যদিও উত্তরপ্রদেশে এসপি-কে সঙ্গে নিলেও কংগ্রেসকে নেয়নি মায়াবতীর দল। তবে আমেঠি ও রায়বরেলি কংগ্রেসের জন্য ছেড়ে দেওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছিলেন মায়াবতী।

এর আগে কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে কংগ্রেসের সঙ্গে দেখা গিয়েছিল মায়াবতীকে। কিন্তু এরপর বিরোধী জোটের একাধিক বৈঠক হলেও সেখানে মায়াবতীর উপস্থিতি দেখা যায়নি।

শনিবার রাহুল গান্ধীর সঙ্গে দেখা করেছেন চন্দ্রবাবু। শেষ দফার আগে জোটের ভিত মজবুত করতে এবার অখিলেশ ও মায়াবতীর সঙ্গেও দেখা করেছেন তিনি। বৈঠক হয়েছে সীতারাম ইয়েচুরির সঙ্গেও। এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ারের সঙ্গেও দেখা করেন তিনি।

২৩ মে ভোটের ফলাফলের দিনেই বিশেষ বৈঠক ডেকেছে কংগ্রেস। সেখানেও উপস্থিত থাকবেন চন্দ্রবাবু নাইডু সহ মহাজোটের শরিকরা। স্বয়ং সোনিয়া গান্ধী ডেকেছেন এই বৈঠক। ফলাফলের পর রাজনৈতিক সমীকরণ নিয়ে আলোচনা হবে সেখানে। তার আগেই নেতা-নেত্রীদের সঙ্গে কথা বলছেন চন্দ্রবাবু ও মায়াবতী।

চন্দ্রবাবু নাইডু- রাহুল গান্ধীর ঘন্টা খানেকের বৈঠক যেমন বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে ঐক্যবদ্ধ করার কথা বলা হয়েছে তেমনই আবার সংখ্যা গরিষ্ঠতা কম থাকা বিজেপি যাতে সরকারের গড়ার জন্য অন্য দলগুলিকে ভাঙাতে না পারে তার জন্য কৌশলগত দিক থেকে তৈরি থাকার কথাও বলা হয়৷

তাছাড়া চন্দ্রবাবু নাইডু তৃণমূল নেত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ রাখছেন৷