তনুজিৎ দাস, কলকাতা : মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদান কি শুধুমাত্র সময়ের অপেক্ষা? মঙ্গলবার বিজেপির কলকাতা সদর দফতরে দলের বৈঠকের পর অন্তত তেমনই ইঙ্গিত মিলেছে৷ এদিন দলের লোকসভা পালক, রাজ্য নেতৃত্বকে নিয়ে বৈঠক করেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অর্জুনরাম মেঘাওয়াল-সহ একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা৷ সেই বৈঠকেই এই বিষয়টি স্পষ্ট হয় বলে জানা গিয়েছে৷

যদিও বিজেপির দাবি, ওই বৈঠকে মুকুল রায় নিয়ে একটি শব্দও খরচ করা হয়নি৷ তবে কেন্দ্রীয় নেতারা দলের রাজ্য নেতৃত্বকে সংগঠনে আরও জোর বাড়াতে নির্দেশ দিয়েছেন৷ বিজেপির একটি সূত্র থেকে দাবি করা হয়েছে, অন্য দল থেকে লোক ভাঙিয়ে আনার জন্যই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফে৷ এর থেকেই রাজ্য রাজনীতিতে মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদানের বিষয়ে জল্পনা আরও জোরদার হয়েছে৷কারণ, মুকুল রায় এখন তৃণমূলে নেই৷ তবে তিনিই ছিলেন তৃণমূলের কান্ডারি৷ দক্ষ সংগঠক হিসাবে তাঁর সুনাম রয়েছে৷ ফলে তাঁকে দলে নেওয়ার ক্ষেত্রে কোনও বাধা থাকার কথা নয় বিজেপির তরফে৷

একই সঙ্গে ২০১১ সালের পর বিরোধী দলগুলি থেকে যত নেতা তৃণমূলে এসেছেন, অধিকাংশ ক্ষেত্রেই মুকুল রায় অগ্রণী ভূমিকা নিয়েছেন বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের দাবি৷ সেক্ষেত্রে মুকুল রায়কে দলে নিলে বিজেপির অন্য দল ভাঙানোর লক্ষ্য সফল হতে পারে৷ রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, সেক্ষেত্রে মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদান সময়ের অপেক্ষা৷

তবে সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় নেতারা ওই বৈঠকে রাজ্য নেতৃত্বকে জানিয়েছেন, অন্যদল থেকে কাউকে নিতে হলে আগে তাঁর সম্পর্কে ভাল করে জেনে নিতে হবে৷ সেক্ষেত্রে মুকুল রায়ের বিজেপিতে যোগদানে রয়েছে সারদা-নারদা কাঁটা৷