ওয়াশিংটন: একের পর এক নিষেধাজ্ঞার জের। ক্রমশ উত্তপ্ত হচ্ছে ইরান এবং আমেরিকার মধ্যে সম্পর্ক। কার্যত গোটা দেশ ইতিমধ্যে ঘিরে ফেলেছে আমেরিকার সামরিক বাহিনী। এই অবস্থায় পালটা হুঁশিয়ারি দিচ্ছে তেহরানও। যেভাবে আমেরিকা এবং ইরানের মধ্যে উত্তেজনা বাড়ছে তাতে যথেষ্ট টেনশনের মধ্যে গোটা বিশ্ব। এই অবস্থায় আলোচনার প্রস্তাব মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের।

এই প্রসঙ্গে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান প্রস্তুত থাকলে তিনি তেহরানের সঙ্গে আলোচনায় বসতে চান। পেনসিলভানিয়ার এক অনুষ্ঠানে যোগদানের জন্য হোয়াইট হাউজ ত্যাগের আগে তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এমনটাই জানিয়েছেন। শুধু তাই নয়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেন, “যদি তারা ফোন করেন তাহলে আমরা নিশ্চয় আলোচনায় বসব। তবে সবই নির্ভর করছে ইরানের ওপর, এমনটাই মত মিস্টার প্রেসিডেন্টের।

তিনি জানিয়েছেন, তারা(ইরান) যদি প্রস্তুত থাকে তাহলে আমি চাই শুধু তারা ফোন করুক। যদি তারা প্রস্তুত না থাকেন তাহলে তাদের বিব্রত করার দরকার নেই।” ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের হুমকির কথা অস্বীকার করে বলেন, “আমরা এমন ইঙ্গিত দিই নি যে, কিছু ঘটবে। তবে কিছু ঘটলে অবশ্যই আমরা শক্তি দিয়ে তা মোকাবেলা করব। আমাদের সামনে বিকল্প থাকবে না।”

এবারও প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প কার্যত ইরানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “তেহরান যদি কিছু করে তাহলে আমরা শক্তি দিয়ে তা মোকাবেলা করব। তবে আমরা বলি নি যে, ইরান হামলা করবে।”