কোচবিহার: মাতুয়া মহাসংঘের বড় মা বীণাপাণি দেবীকে ‘ডিলিট’সম্মানে সম্মানিত করছে কোচবিহারের পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়৷ সোমবার আনুষ্ঠানিকভাবে একথা জানালেন পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দেব কুমার মুখোপাধ্যায়। আগামী ৬ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় সমাবর্তন অনুষ্ঠানে বড় মাকে এই সম্মান দেবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য তথা রাজ্যপাল কেশরি নাথ ত্রিপাঠী।

বড়মা বীণাপাণি দেবীর শারীরিক অবস্থার জন্য তিনি যদি উপস্থিত না হতে পারেন তবে, সমাবর্তন অনুষ্ঠানের পরে কোন এক দিন বড় মার বাড়িতে গিয়েই তাকে এই সম্মান তুলে দেবে বিশ্ব বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এদিন এক সাংবাদিক সম্মেলনে পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দেব কুমার মুখোপাধ্যায় বলেন, বড় মা মাতুয়া সম্প্রদায়ের সমাজ সংস্কারের ক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকার জন্যই তাকে এই সম্মান দেওয়ার কথা বিশ্ববিদ্যালয় ভেবে ছিল। এর পর বড় মার সম্মতি পাওয়ার পর, রাজ্যপালও সম্মতি দেন। তিনি কথা দিয়েছিলেন নিজে উপস্থিত থেকে এই সম্মান গ্রহণ করবেন।

তবে বর্তমানে তিনি অসুস্থ থাকায় তাঁর পক্ষে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকা অনিশ্চিত৷ তাই এই সম্মান পরে তাঁর বড়িতে গিয়েই দেওয়া হবে বলে জানান উপাচার্য৷ এদিন উপাচার্য জানান, রাজ্যপাল কেশরী নাথ ত্রিপাঠী মঙ্গলবার বিকেলে কোচবিহারে আসবেন৷ বুধবার সকাল সাড়ে নটায় উৎসব প্রেক্ষাগৃহে রাজ্যপাল সমাবর্তন অনুষ্ঠানের সূচনা করবেন। তার আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কোর্ট মিটিংকে অংশ নেবেন তিনি। এবছর ৫৬ জন ছাত্র ছাত্রীকে স্বর্ণ পদক এবং ৬৬ জনকে রৌপ্য পদক প্রদান করা হবে। এই সমাবর্তন অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বিশিষ্ট বিজ্ঞানী বিকাশ সিনহা।