নয়াদিল্লি: ভারতের অর্থনীতিতে ধস নেমেছে। অভিযোগের আঙুল তুলতে শুরু করেছেন বিরোধীরা। আর সেই প্রশ্নের মুখেই জবাব দিতে গিয়ে বিভ্রাট তৈরি করছেন মোদীর মন্ত্রীরা। গাড়ি ব্যবসায় কেন মন্দা চলছে তা র ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে সীতারামন বলেছেন, অ্যাপ ক্যাবে চড়ার প্রবণতাই নাকি এর কারণ। অর্থমন্ত্রীর এমন ব্যাখ্যায় প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। এবার সেই দলেই আর এক মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল।

পাঁচ ট্রিলিয়ন অর্থনীতির যে স্বপ্ন দেখাচ্ছে মোদী সরকার, তা নিয়েই কথা বলছিলেন তিনি। জিডিপি-তে ধস নামার সঙ্গে সেই পাঁচ ট্রিলিয়নের অর্থনীতির যে সম্পর্কে নেই সেটাই বোঝাচ্ছিলেন কেন্দ্রীয় বাণিজ্য মন্ত্রী। আর সেই ব্যাখ্যার মাঝেই করে বসেন এক অদ্ভুত মন্তব্য। বলে, ‘আইনস্টাইনের মাধ্যাকর্ষণ আবিষ্কারে অঙ্ক কোনও কাজে আসেনি।’

কয়েকদিন আগেই নির্মলা সীতারামণ বলেন, ‘নতুন প্রজন্ম আগ্রহী নয় গাড়ি কেনায় বরং তারা ওলা-উবেরের মতো অ্যাপ ভিত্তিক গাড়ি ভাড়া নিতে চায়৷ কারণ এই প্রজন্মের পেশাদাররা ইএমআই স্কিমে গাড়ি কিনে তার রক্ষণাবেক্ষণের বদলে সেই অর্থ অন্য কিছুতে ইনভেস্ট করতে চাইছে।’ তাঁর এই মন্তব্যকে ঘিরে অনেকেই মস্করা করেন ট্যুইটারে। এবার পীযূষ গোয়েল।

এদিন পীযূষ গোয়েল আরও বলেন, ‘টিভিতে জিডিপি-র যে হিসেব দেখছেন তা বিশ্বাস করবেন না। এইসব অঙ্কে বিশ্বাস করবে না।। আইনস্টাইনকে মাধ্যাকর্ষণ আবিষ্কারের সময় কোনও অঙ্ক সাহায্য করেনি।’ এখানেই থেমে থাকেননি। তিনি আরও বলেন, ‘যদি আইনস্টাইন নিছক গড়পড়তা হিসেব-নিকেষের সাহায্য নিতেন, তাহলে পৃথিবীকে কোনও কিছু আবিষ্কার হত বলে মনে হয় না।’

পীযূষ গোয়েলের এই মন্তব্যে সমস্যা দু’জায়গায়। এক, মাধ্যাকর্ষণ তো আইনস্টাইন আবিষ্কার করেননি। করেছিলেন, স্যার আইজ্যাক নিউটন। তাঁর সেই বিখ্যাত আপেল পড়ার গল্প সবারই জানা। সেটাও যদি তিনি ভুলে যান, এই আবিষ্কারে অঙ্ক কোনও কাজে আসেনি, এই মন্তব্যও হজম করতে পারছেন না অনেকেই।

যদি আইনস্টাইনের কথা ধরা হয়, তাহলে তিনি তো একটি আস্ত ফর্মুলা আবিষ্কার করেছিলেন। বিখ্যাত সেই ফর্মুলা অনুযায়ী, E=mc2. আবার যদি নিউটনের কথা ধরা হয়, তাহলেই বা তিনি কোনও অঙ্ক না কষেই মাধ্যাকর্ষণের মত একটা বিষয় আবিষ্কার করলেন কীভাবে, সেটা ভেবেই অবাক অনেকে।

ভারতের অর্থনীতিতে গত তিন মাসে একধাক্কায় অনেকটাই নেমেছে জিডিপি। ভারত সবথেকে দ্রুত গতিসম্পন্ন অর্থনীতির দেশ হিসেবে জায়গা করে নিয়েছিল। সেই জায়গাও হারিয়েছে ইতিমধ্যেই।