নিউ ইয়র্ক: পৃথিবীর একেবারে পাশ দিয়ে চলে যাবে গ্রহাণু। একদিকে যখন পৃথিবীর মাটিতে মহামারীর সঙ্গে লড়াই চলছে, তখন মহাকাশে কার্যত এক মহাজাগতিক ঘটনা। আর সেই ঘটনায় চোখ রেখেছে নাসার মহাকাশবিদরা।

পৃথিবীর কাছ ঘেঁষেই চলে যাবে সেই গ্রহাণু। সম্প্রতি মহাকাশবিদদের হাতে উঠে এসেছে সেই ছবি। একটি অবজারভেটরি থেকে সেই ইমেজ প্রকাশ্যে আনা হয়েছে। প্রায় ২ কিলোমিটার চওড়া এই গ্রহাণু মাউন্ট এভারেস্টের অর্ধেক।

১৯৯৮ সালে প্রথম এই গ্রহাণুটি আবিষ্কার করা হয়েছিল। আগামী ২৯ এপ্রিল এই গ্রহাণু ছুটে যাবে পৃথিবীর পাশ দিয়ে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন এর কোনও প্রভাব পড়বে না পৃথিবীর ওপর। পৃথিবী থেকে ৩.৯ মিলিয়ন মাইল দূর দিয়ে ছুটে যাবে গ্রহাণুটি।

পৃথিবী থেকে চাঁদের যা দূরত্ব তার থেকেও ১৬ গুন দূর দিয়ে যাবে এটি। নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন যদি এটি পৃথিবীর সঙ্গে কোনভাবে ধাক্কা খেত তাহলে পৃথিবীতে ভয়ঙ্কর প্রভাব পড়তে পারতো। কিন্তু সেরকম কোনো সম্ভাবনা আপাতত নেই।

এই গ্রহাণু ঘিরে অবশ্য উৎসাহ অনেক বেশি। কারণ গ্রহাণুটি আসছে মাস্ক পরে। তাই মাস্ক পরা এখনও বাধ্যতামূলক। সারা পৃথিবীর মানুষ এখন মাস্ক পরার অভ্যাস করে ফেলেছেন। এই অবস্থায় নাকি পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে একটা আস্ত গ্রহাণু, যার নাকি মুখে বাঁধা মাস্ক।

মহাকাশ মহাকাশবিদরা জানিয়েছেন এই গ্রহাণুটির ভৌগলিক বৈশিষ্ট্য এমনই যাতে দেখে মনে হচ্ছে এটিকে ফেস মাস্ক পড়ানো হয়েছে। আসলে এই গ্রহাণুটি পর্বতের মত চড়াই-উৎরাই তে ভরা। আর সেই জন্যই এমন চেহারা তৈরি হয়েছে।

বুধবার ভোর ৫ টা ৫৬ মিনিটে পৃথিবীর পাশ দিয়ে যাবে এটি।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব