স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: এনআরএস কাণ্ডের ছায়া উত্তর ২৪ পরগণায়৷ কুকুরকে হত্যার দায়ে এক ব্যক্তিকে গণ প্রহার দিয়ে হাসপাতালে পাঠাল উত্তেজিত জনতা।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগণার হালিশহরের দত্তপাড়া এলাকায়। বীজপুর থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্তে নেমেছে। এই ঘটনায় পুলিশ এখনও কাউকেই গ্রেফতার করেনি।

এনআরএস হাসপাতালের কুকুর ছানাদের হত্যাকারী দুই নার্সের অমানবিক দৃশ্য এখন আর কারোর অজানা নয়। সেই একই ঘটনা ফের প্রকাশ্যে এল উত্তর ২৪ পরগণার হালিশহরের দত্তপাড়া এলাকায়। দত্ত পাড়ার স্থানীয়দের বক্তব্য, সোমবার দুপুরে হালিশহর সাত নম্বর ওয়ার্ডের দত্তপাড়া এলাকায় মর্মান্তিকভাবে একটি কুকুরকে ধারালো দা দিয়ে কেটে হত্যার ঘটনা ঘটে।

ফাইল ছবি

ওই পাড়ার একটি কুকুর খাবারের সন্ধানে প্রতিদিনই জয়দেব করের বাড়িতে ঢুকে পড়ত। তেমনি সোমবার দুপুরেও জয়দেব বাবুর বাড়িতে ওই কুকুরটি ঢুকে পড়েছিল। তিনি তখন বাগানে কাজ করছিলেন৷ হঠাৎ ওই কুকুরটিকে দেখতে পেয়ে তিনি ক্রোধান্বিত হয়ে পড়েন। তাঁর হাতে থাকা দা দিয়ে কুকুরটিকে আঘাত করলে রক্তাক্ত কুকুরটি পালানোর চেষ্টা করে। তখন জয়দেব বাবু ফের ওই রক্তাক্ত কুকুরটিকে দা দিয়ে পেটে কোপায়। এরপরই কুকুরটি খানিকটা দূরে গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় ঘটনাস্থলেই মারা যায়।

স্থানীয় বাসিন্দারা ঘটনাটি দেখতে পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে মারধর শুরু করে অভিযুক্ত জয়দেবকে। বীজপুর থানায় এই ঘটনার খবর গেলে পুলিশ এলাকায় আসে৷ তাঁরা জয়দেব বাবুকে জখম অবস্থায় উদ্ধার করে কল্যাণী জেএনএম হাসপাতালে ভরতি করে। বীজপুর থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, জয়দেবের অবস্থা যথেষ্ট আশঙ্কাজনক।