মুম্বই: সকলেরই স্বপ্ন থাকে গাড়ি কেনার। নিজের একটা গাড়ি হলে বেশ হয় তাই না? এখন সুখবর। আপনি যদি মুম্বই, চেন্নাই, আহমেদাবাদ বা গান্ধীনগরে থাকেন তবে আপনি কোনও নতুন মারুতি সুজুকি গাড়ি না কিনেই চালাতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে কেবল মাসিক সাবস্ক্রিপশন চার্জ দিতে হবে। এই স্কিমের আওতায় আপনি ২৪ থেকে ৪৮ মাসের জন্য গাড়ি পেয়ে যাবেন।

রিপোর্টে উল্লিখিত চারটি শহরে মাসিক ফি দিয়ে নতুন গাড়ি দেওয়ার স্কিমটিকে চালু করেছে মারুতি। দেশের বৃহত্তম গাড়ি সংস্থা মারুতি সুজুকি আগামী তিন বছরে এই প্রোগ্রামটি দেশের ৬০ টি শহরে সম্প্রসারণের পরিকল্পনা করেছে।

সংস্থাটি মঙ্গলবার জানিয়েছে, এই কর্মসূচিটি এখন মুম্বই, চেন্নাই, আহমেদাবাদ এবং গান্ধীনগর শহরে রয়েছে। এর আগে, সংস্থাটি দিল্লি-এনসিআর, ব্যাঙ্গালোর, হায়দরাবাদ এবং পুনেতে মারুতি সুজুকি সাবস্ক্রিপশন প্রোগ্রাম শুরু করেছিল।

আরও পড়ুন – বাংলায় ক্ষমতায় এলে শিল্পীদের পেনশন দেবে বিজেপি: কৈলাস

এই কোম্পানি জানিয়েছে, তাঁরা জাপানের অরিক্স অটো ইনফ্রাস্ট্রাকচার সার্ভিসেস ইন্ডিয়া অরিক্স কর্পোরেশনের সঙ্গে চুক্তি করেছে। কোম্পানি জানিয়েছে, এই স্কিমে গ্রাহকরা গাড়ির মালিক না হয়েই নতুন গাড়িটি ব্যবহার করতে পারবেন।

এর জন্য গ্রাহককে কেবল মাসিক অর্থ দিতে হবে। এই টাকার মধ্যে পুরো রক্ষণাবেক্ষণ, বীমা এবং রাস্তায় যানবাহনের ক্ষতির ক্ষেত্রে সহায়তা সবকিছু অন্তর্ভুক্ত থাকবে। মারুতি সুজুকি জানিয়েছে, আপাতত এটি আপিলট প্রোজেক্ট থাকলেও ধীরে ধীরে তা অন্য শহরে ছড়িয়ে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে।

এই স্কিমে গ্রাহকেরা মারুতি সোজুকি এরিনা , সুইফট, ডিজায়ার, ভিটারা ব্রেজা এবং এরটিগা বেছে নিতে পারবেন। সাবস্ক্রিপশন ফি গাড়ির মডেল অনুযায়ী হয়। আবার আলাদা আলাদা শহরেও এই সাবস্ক্রিপশন ভিন্ন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।