হাওড়া: গত মঙ্গলবার পাকিস্তানে সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত হন বিএসএফের অ্যাসিস্ট্যান্ট কমান্ডেন্ট বিনয় প্রসাদ৷ বৃহস্পতিবার সকালে হাওড়ার বাঁধাঘাট শ্মশানে শহীদ জওয়ানের শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়৷

এদিন বেলা ১১টা নাগাদ বিএসএফ জওয়ানরা বিনয় প্রসাদের কফিন বন্দি দেহ হাওড়ার বাড়িতে নিয়ে আসেন। এখানে তাঁর পরিবারের সদস্যরা তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানান। এরপর তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় বাঁধাঘাট শ্মশানে। সেখানেই তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হয়। শহিদ জওয়ানকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে এদিন সকাল থেকেই বিনয় প্রসাদের বাড়িতে ভিড় জমান বহু মানুষ।

গোলাবাড়ির এসি মার্কেট ডবসন রোডের ২০৯ নং শ্যামা সদনের ফ্ল্যাটে তখন তিলধারণের জায়গা নেই। বাড়ির বাইরের সব রাস্তা একসময় জনতার স্রোতে অবরুদ্ধ হয়ে যায়। সকলেই শহিদ জওয়ানকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে চান। ভিড় সামাল দিতে কার্যত হিমসিম খায় পুলিশ। বিএসএফ জওয়ানরাও হাজির ছিলেন সেখানে।

এদিনের তাঁর শেষ যাত্রায় উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের সমবায় দফতরের মন্ত্রী অরূপ রায়, ক্রীড়া ও যুব কল্যাণ দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা সহ অন্যান্যরা। শহিদ বিনয় প্রসাদকে চোখের জলে বিদায় জানান সকলে।

মঙ্গলবার জম্মু কাশ্মীরের সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘনের জেরে শহিদ হন বিএসএফ জওয়ান৷ জানা গিয়েছে, এদিন কাঠুয়ার কাছে হীরানগর সেক্টর ও সুন্দরবানি সেক্টরে হেভি শেলিং শুরু করে পাক সেনা৷ তাতে জখন হন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমান্ডান্ট বিনয় প্রসাদ নামে এক বিএসএফ জওয়ান৷ পরে তাঁর মৃত্যু হয়৷