ব্রিসবেন: মহাতারকা হয়ে ওঠার সব রকম রসদ রয়েছে তাঁর মধ্যে৷ নূন্যতম সুযোগেই আন্তর্জাতিক মঞ্চে যে রকম প্রভাব বিস্তার করেছেন মার্নাস ল্যাবুশেন, তাতে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের পরবর্তী মুখ হয়ে উঠতে পারেন তিনি৷শেষ ৫টি টেস্টে একটি দ্বিশতরানসহ চারটি সেঞ্চুরি এসেছে তাঁর ব্যাট থেকে৷ এহেন ল্যাবুশেন মনে করেন যে ভারতে এসে ভারতকে সামলানোর মতো কঠিন কাজ আর কিছু নেই৷

আরও পড়ুন: পিঙ্ক টেস্টে গোলাপি পোশাকে অজি ক্রিকেটারদের WAGs

এর আগে কখনও দেশের জার্সিতে সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলননি৷ সিডনিতে ভারতের বিরুদ্ধে একটি টেস্টে মাঠে নামলেও জাতীয় দলের সঙ্গে ভারত সফরে আসেননি কখনও৷ টেস্টের পারফরম্যান্স দিয়ে তিনি ঢুকে পড়েছেন আসন্ন ভারত সফরের ওয়ান ডে দলে৷ স্বাভাবিকভাবেই ভারত সফর প্রসঙ্গে বাড়তি সতর্ক শোনান ল্যাবুশেনকে৷

আরও পড়ুন: টেস্ট ক্রিকেটকে মরতে দেবেন না সৌরভ, চারদিনের টেস্টের বিরোধিতায় জানালেন আখতার

২৫ বছর বয়সি ল্যাবুশেন জানান, ‘যখনই আপনি ভারতে ক্রিকেট খেলবেন, সেটা আপনার কাছে সব থেকে কঠিন সিরিজ হবে৷ কারণ ভারত অত্যন্ত কঠিন প্রতিপক্ষ৷ ওদের দলে অসাধারণ সব ব্যাটসম্যান ও বোলার রয়েছে৷সুতরাং ভারতে খেলা সব সময় চ্যালেঞ্জের’

আরও পড়ুন: কিউয়িদের বিরুদ্ধে সিরিজ জিতে ‘বিরাট হুশিয়ারি’ দিলেন অজি অধিনায়ক

পরে ল্যাবুশেন আরও বলেন যে, ‘এক জন ক্রিকেটার হিসেবে আপনি সবসময় চাইবেন কঠিন পরিবেশি-পরিস্থিতিতে সেরা প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে নিজেকে যাচাই করতে৷ আর এটা নিশ্চিত যে, ভারতের মাটিতে ভারতের বিরুদ্ধে খেলার থেকে কঠিন কিছু হয় না৷’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।