স্টাফ রিপোর্টার, বাঁকুড়া: আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের আগেই পুরুষ ও মহিলাদের পৃথক দুই ‘ম্যারাথন দৌড়ে’র মাধ্যমে ঢাকে কাঠি পড়ে গেল বাঁকুড়ার ‘জয়পুর পর্যটন উৎসবে’র। শুক্রবার ‘রান ফর হেরিটেজ’ স্লোগানকে সামনে রেখে ম্যারাথন দৌড়ের সূচনা করেন রাজ্যের মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা। উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় বিডিও বিট্টু ভৌমিক সহ ব্লক ও পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকরা।

তৃতীয় বর্ষ জয়পুর পর্যটন উৎসব কমিটি সূত্রে খবর, আগামী শনিবার এবারের পর্যটন উৎসবের সূচনা করবেন রাজ্যের শ্রম, আইন, বিচার বিভাগ ও জনস্বাস্থ্য কারিগরী দপ্তরের ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী মলয় ঘটক। উপস্থিত থাকবেন জেলাশাসক ডাঃ উমাশঙ্কর এস, পুলিশ সুপার কোটেশ্বর রাও, বিষ্ণুপুরের মহকুমাশাসক মানস মণ্ডল সহ জেলাপ্রশাসনের বেশ কয়েকজন আধিকারিক ও বিভিন্ন স্তরের জনপ্রতিনিধিরা।

পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী তার আগে এদিন পুরুষ ও মহিলাদের পৃথক দুই ম্যারাথন দৌড়ের আয়োজন করা হয়। পুরুষ বিভাগের দৌড় চাতরা মোড় থেকে জয়পুর হাই স্কুল প্রায় দশ কিলোমিটার ও মহিলাদের বাঘাজোল থেকে জয়পুর হাই স্কুল পর্যন্ত্য তিন কিলোমিটার ম্যারাথন দৌড়ে মোট ৪৫৬ জন প্রতিযোগী অংশ নেন।

 

অংশগ্রহণকারী পুরুষ ও মহিলা পৃথক দুই বিভাগে প্রথম দশ জনকে উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে পুরস্কৃত করা হবে। পর্যটন উৎসব কমিটির পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েছে এবারের উৎসবের অঙ্গ হিসেবে এদিন জাতীয় স্তরের ভলিবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

যেখানে জয়পুর ব্লক এলাকার ন’টি গ্রাম পঞ্চায়েতের হয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যেমন আসাম, কেরালা, পাটনা, পোর্ট ট্রাস্ট, পূর্ব রেলওয়ে দলের বিখ্যাত ভলিবল খেলোয়াড়রা অংশ নেবেন। সম্পূর্ণ বিনামূল্যে দিবা-রাত্রির খেলা দর্শক সাধারণ উপভোগ করতে পারবেন বলে জানা গিয়েছে৷

উদ্যোক্তাদের পক্ষে মন্ত্রী শ্যামল সাঁতরা বলেন, পর্যটন মানচিত্রের বাঁকুড়ার জয়পুর ব্লককে তুলে ধরতে তিন বছর আগে এই পর্যটন উৎসবের সূচনা হয়। ‘জয়পুরের জয় হোক’ এই স্লোগানকে আমরা উৎসবের মূল স্লোগান হিসেবে উপস্থাপিত করেছি।

এদিনের ম্যারাথন দৌড় ও ভলিবল প্রতিযোগিতা বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, আমাদের সমাজ জীবনে খেলাধূলার বিশেষ ভূমিকা রয়েছে। কিন্তু এতো সবের পরেও বর্তমান প্রজন্মের মধ্যে খেলাধূলার প্রতি কোথাও একটা অনীহা দেখা দিচ্ছে। একটা সময় পড়াশুনার পাশাপাশি সমানে খেলার মাঠেও দাপিয়ে বেড়াতো আমাদের গ্রাম বাংলার ছেলেমেয়েরা। কিন্তু সেই ছবিটা এখন আর সেভাবে দেখা যায়না। সেকারণেই নব প্রজন্মকে মাঠমুখী করে তুলতেই জয়পুর পর্যটন উৎসবের ব্যানারে এই দুই প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।