কলকাতা: মুর্শিদাবাদের বাস দুর্ঘটনা নিয়ে বৃহস্পতিবার বিধানসভায় দাপিয়ে বেরিয়েছিল বিরোধীরা৷ ২৪ ঘন্টার মধ্যে তাদের কড়া জবাব দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ হুঁশিয়ারির সুরে তিনি বললেন, রাজ্যে কতগুলো স্বার্থপর দৈত্য তৈরি হয়েছে৷ অন্ধ বিরোধীতা করবেন না৷ তাহলে আগামীতে জামানত থাকবে না৷

শুক্রবার বিধানসভায় বাজেট বক্তৃতা করতে গিয়ে বিরোধীদের ঝাঁঝালো আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বাম-কংগ্রেস ও বিজেপিকে এদিন একযোগে নিশানা করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিরোধী থাকার সময় দুর্ঘটনা ঘটলে আমরা সরকারকে সাহায্য করেছি৷ কিন্তু করিমপুরে দুর্ঘটনার পর কী করেছেন সিপিএম বন্ধুরা? ওদের তর্জন-গর্জনই সার। ২০১৬ সালের ভোটে দেখেছি বিরোধীরা কী করেন। বিধানসভায় বিভ্রান্তিমূলক কথা বলেন।

কটাক্ষের সুরে এদিন মমতা বলেন, বিরোধীদের কাজ শকুনির মতো। কখন মরবে তার জন্য বসে থাকেন। ছোটোমুখে বড় কথা বলতে এদের জুড়ি নেই। তোমরা তিনটে দল এক হয়েও তৃণমূলকে ধরতে পারবে না। আমাদের সরকার কাজ করার চেষ্টা করে।”

বিধানসভায় বাস দুর্ঘটনা ইস্যুতে বৃহস্পতিবার তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়ের দিকে প্রকাশ্যে হাত উঁচিয়ে তেড়ে যান কংগ্রেস বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী। শুক্রবার তারও জবাব দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কংগ্রেস বিধায়কদেরও একহাত নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বলেন, দিল্লিতে কংগ্রেসের তৃণমূল ছাড়া চলে না। সোনিয়া গান্ধী গতকাল উপনির্বাচনের জন্য আমাকে অভিনন্দন জানিয়েছেন৷ রাজস্থানের ফলের জন্য আমি সনিয়া গান্ধীকে অভিনন্দন জানাই৷ এখানে চুনোপুঁটি নেতা হয়ে মুখ নাড়েন কীভাবে? কন্যাশ্রী তো আমার প্রোজেক্ট। মান্নান বলছেন আগেই ছিল। এরা কোথা থেকে এসেছে? যারা হাউজ়ে আসেন তাঁরা অশোভনীয়ভাবে ঢুকলে চলবে না। স্পিকার দেখুন।

এতদিন অধিবেশন চলাকালীন মুখ্যমন্ত্রীর গরহাজির থাকা বা প্রশ্নের উত্তর না দেওয়া নিয়ে একাধিকবার অভিযোগ করেছে বিরোধীরা৷ এদিন পাল্টা অভিযোগের সুরে মমতা বলেন, “ওরা আমাকে ভয় পান। তাই বিধানসভায় মুখোমুখি হতে ওরা ভীত।”

বিধানসভায় এদিন মুখ্যমন্ত্রীর ঝোড়ো ব্যাটিং প্রসঙ্গে এক তৃণমূল নেতার সরস মন্তব্য, কাল দিনটা ওদের (বিরোধীদের) ছিল৷ জবাব দিতে দিদি আজ ক্রিজে নেমেছিলেন৷ ফল তো উল্টো হবেই৷