পুশিয়ান: আইএসএসএফ বিশ্বকাপে বছরের প্রথম সোনা জিতে ইতিহাস লিখলেন মনু ভাকের। দেশের তরুণ শুটিং সেনসেশন ২০১৯ শুটিং বিশ্বকাপে দেশের প্রথম সোনা জয়ের পথে বৃহস্পতিবার গড়ে ফেললেন একটি বিশ্বরেকর্ড। জুনিয়র বিশ্বরেকর্ড গড়ে মহিলাদের ১০ মিটার এয়ার পিস্তল ইভেন্টে পোডিয়াম টপে শেষ করলেন হরিয়ানার মাত্র ১৭ বছরের এই মহিলা শুটার।

১০ মিটার এয়ার পিস্তল ফাইনালে নয়া জুনিয়র বিশ্বরেকর্ড গড়ার পথে এদিন ২৪৪.৭ স্কোর করেন ভাকের। দ্বিতীয়স্থানে থাকা সার্বিয়ার জোরানা আরুনোভিচ ২৪১.৯ স্কোর করে শেষ করেন অনেকটাই পিছনে। হিনা সিন্ধুর পর দ্বিতীয় ভারতীয় শুটার হিসেবে বিশ্বকাপের ১০ মিটার এয়ার পিস্তল ইভেন্টে সোনা জিতলেন ভাকের। একই ইভেন্টে দেশের আরেক প্রতিযোগী যশস্বিনী দেশোয়াল যদিও ব্যর্থ হন পোডিয়াম ফিনিশ করতে। ওই ইভেন্টে ব্রোঞ্জ জিতেছেন চিনের কুইয়ান ওয়াং। তাঁর সংগৃহীত পয়েন্ট সংখ্যা ২২১.৮।

মনুর পাশাপাশি ১০ মিটার এয়ার রাইফেল ইভেন্টে সোনা এল এলাভেনিল ভালারিভানের হাত ধরে। চলতি বছর দুরন্ত ছন্দে থাকা ভালারিভান দেশের তৃতীয় মহিলা শুটার হিসেবে বিশ্বকাপের এই ইভেন্টে সোনা জিতে নিলেন। চিনা তাইপের লিন ইং-শিংকে ০.১ ব্যবধানে পরাস্ত করে পোডিয়াম টপে ফিনিশ করলেন তামিলনাড়ুর বছর কুড়ির এই শুটার। অঞ্জলি ভগবত ও অপূর্বী চান্ডেলার পর ভালারিভানের হাত ধরে ২৫ মিটার এয়ার রাইফেলে সোনা এল ভারতের। সোনা জয়ের পথে ফাইনালে এদিন ২৫০.৮ পয়েন্ট সংগ্রহ করেন তিনি। রুপোজয়ী চিনা তাইপের প্রতিদ্বন্দ্বীর সংগৃহীত পয়েন্ট সেখানে ২৫০.৭।

মহিলাদের পাশাপাশি পুরুষদের ১০ মিটার এয়ার পিস্তল ইভেন্টেও পদক জয়ের সম্ভাবনা রয়েছে ভারতের জন্য। পুরুষদের ১০ মিটার এয়ার পিস্তল ইভেন্টের ফাইনালে যোগ্যতা অর্জন করেছেন কমনওয়েলথ গেমসে রুপোজয়ী আরেক তরুণ শুটিং সেনসেশন সৌরভ চৌধুরি ও অভিষেক বর্মা। কোয়ালিফাইং রাউন্ডে শীর্ষস্থানে শেষ করে ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেন অভিষেক। তাঁর সংগৃহীত পয়েন্ট ৫৮৮। অন্যদিনে ৫৮১ পয়েন্ট নিয়ে সপ্তমস্থানে শেষ করে ফাইনালের টিকিট কনফার্ম করেন সৌরভ।

তবে ১০ মিটার এয়ার পিস্তলে সোনা জিতলেও মহিলাদের ২৫ মিটার এয়ার পিস্তল ইভেন্টের ফাইনালে যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হন কমনওয়েলথ গেমসে সোনাজয়ী মনু ভাকের ও রাহি স্বর্নোবত। কোয়ালিফাইং রাউন্ডে প্রেশিসন ও র‍্যাপিড ইভেন্ট মিলিয়ে ৫৮৩ পয়েন্ট স্কোর করেও ফাইনালের যোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হন মনু।