নয়াদিল্লি: করোনার জেরে দেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে তৈরি সংকটের দায় কেন্দ্রীয় সরকারের ওপরই চাপালেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। ভারতের ক্ষেত্রে এই আর্থিক সংকট মানুষের তৈরি বলে মনে করেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী।

একইসঙ্গে হঠাত্‍ করে দেশে লকডাউন ঘোষণা ও তার প্রয়োগ নিয়ে মোদী সরকার নির্বুদ্ধিতার পরিচয় দিয়েছে বলেও তোপ দেগেছেন মনমোহন সিং। অর্থনৈতিক সংকট থেকে ঘুরে দাঁড়াতে তিনটি পরামর্শও দিয়েছেন বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ।

সংবাদমাধ্যম বিবিসি-কে একটি সাক্ষাত্‍কার দিয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। সেখানেই আর্থিক সংকট ঘোঁচাতে প্রথমেই গরিব মানুষের হাতে অবিলম্বে টাকার জোগান দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন মনমোহন সিং।

করোনা পরিস্থিতির জেরে কাজ হারিয়ে বহু গরিব মানুষ অর্থনৈতিকভাবে ভীষণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এই অবস্থা থেকে তাঁদের কিছুটা সুরাহা দিতে তাঁদের হাতে নগদ টাকার জোাগান দেওয়ার পরামর্শ মনমোহন সিংয়ের।

করোনা পরিস্থিতিতে ক্ষতির মুখে পড়েছেন ব্যবসায়ীরাও। ব্যবসায়ীদের জন্য সরকারি লোন-প্রকল্পের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে বলে মনে করেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী। করোনার জেরে দেশের ছোট-বড় প্রায় সব ব্যবসায়ী ক্ষতির মুখে পড়েছেন।

তাঁদের এই ক্ষতি সামাল দিতে এখনই কেন্দ্রের ক্রেডিট গ্যারান্টি স্কিম আনা জরুরি বলে মনে করেন বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ। এছাড়াও ইনস্টিটিউশনাল অটোনমির মাধ্যমে দেশের অন্যান্য আর্থিক সংস্থাগুলিকে চাঙ্গা করতে কেন্দ্রীয় সরকারের বাড়তি তৎপরতা নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন মনমোহন সিং।

করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে হঠাৎ করে লকডাউন ঘাষণা করা নিয়েও কেন্দ্রকে একহাত নিয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী। এবিষয়ে তিনি বলেন, ‘লকডাউন প্রয়োজন থাকলেও হঠাত্‍ করে সেটা ঘাষণা করা ঠিকক হয়নি। আচমকা লকডাউন ঘোষণা হওয়ায় দেশের মানুষ ভয়ঙ্কর যন্ত্রণার মুখে পড়েছন।’

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও