উলান-উদে (রাশিয়া): বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপে জয়ের ধারা অব্যাহত মঞ্জু রানির। রিংয়ে তাঁর স্বপ্নের ফর্ম বজায় রেখে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের অভিষেকেই ফাইনালে পৌঁছে গেলেন হরিয়ানার এই মহিলা বক্সার। একইসঙ্গে ভারতের প্রথম মহিলা বক্সার হিসেবে অভিষেকেই বক্সিং চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পৌঁছে ইতিহাস গড়লেন রানি। সেমিফাইনাল থেকে মেরি কমের বিদায়ের দিনে থাইল্যান্ডের চুথামাত রাকসতকে পরাস্ত করে ৪৮ কেজি ক্যাটেগরির ফাইনালে পা রাখলেন রানি। একইসঙ্গে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের আবির্ভাব মঞ্চেই অন্ততপক্ষে রুপোজয় নিশ্চিত হল তাঁর।

শেষ চারের লড়াইয়ে এদিন থাই প্রতিদ্বন্দ্বীকে ৪-১ ব্যবধানে ধরাশায়ী করলেন টুর্নামেন্টের ষষ্ঠ বাছাই। কোয়ার্টার ফাইনালে উত্তর কোরিয়ার কিম হিয়াং মি’কে পরাজিত করে আগেই পদক নিশ্চিত করেছিলেন রানি। মঞ্জু জিতলেও এদিন বাকি তিনটি বাউটের প্রত্যেকটিতেই হতাশ করলেন ভারতের মহিলা বক্সাররা। দিনের শুরুতে তুরস্কের বুসেনাজ চাকিরোগলুর কাছে হেরে ঐতিহাসিক ব্রোঞ্জ জয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় মণিপুরী বক্সারকে। ৫১ কেজি ক্যাটেগরির শেষ চারের লড়াইয়ে এদিন মেরি হারলেন ১-৪ ব্যবধানে। বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের মঞ্চে সপ্তম সোনা জয় অধরা রইল লন্ডন অলিম্পিকের রুপোজয়ীর।

পাশাপাশি ৫৪ কেজি বিভাগের সেমিফাইনালে চিনা-তাইপের প্রতিদ্বন্দ্বী হুয়াং সিয়াও-ওয়েনের কাছে হেরে ব্রোঞ্জ জিতেই সন্তুষ্ট থাকতে হল যমুনা বোরোকে। মঞ্জুর পাশাপাশি বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের আবির্ভাব মঞ্চে দুরন্ত ফর্মে ছিলেন অসমের এই বক্সার। শেষ চারের লড়াইয়ে এদিন ০-৫ ব্যবধানে পরাজিত হন বোরো। ব্রোঞ্জ জয়ের পর তিনি জানান, ‘প্রথম সিনিয়র বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপের ব্রোঞ্জ জিতে শেষ করলাম। পদকের রং বদলানোর জন্য চেষ্টার কোনও ত্রুটি রাখিনি কিন্তু নিশ্চয় কোথাও ভুল হয়েছে। দেশে ফিরে কোচের সঙ্গে সেগুলো নিয়ে আলোচনা করব। ভবিষ্যতে ভালো ফলের জন্য আরও পরিশ্রম করব।’

৬৯ কেজি বিভাগে শেষ চারের লড়াইয়ে দৌড় থামল অসমের আরেক বক্সার লভলিনা বর্গোহেইনের। চিনের ইয়াং লিউ’য়ের কাছে ২-৩ ব্যবধানে হেরে টানা দ্বিতীয়বার ব্রোঞ্জ জিতেই ফিরতে হল তাঁকে। ৫১ কেজি বিভাগের সেমিফাইনাল বাউট হারের পর বিচারকের সিদ্ধান্তে অসন্তুষ্ট মেরি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আর্জি জানান। কিন্তু এআইবিএ টেকনিক্যাল কমিটি মেরির সেই আবেদনে সাড়া দেয়নি। পরবর্তীতে টুইটারে সেমিফাইনালের গোটা ভিডিও ফুটেজ তুলে ধরেন। সঙ্গে লেখেন, ‘কেন এবং কীভাবে। আপনারাই দেখুন সিদ্ধান্ত কতটা সঠিক কিংবা ভুল ছিল।’

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I