বাড়িতেই চটজলদি বানিয়ে ফেলুন এই কেক৷বাড়ির বাচ্ছাদের তো পছন্দ হবেই, পাশাপাশি আপনারও মন্দ লাগবে না৷ছুটির দিনে সকালে আপনার ছোট্ট সোনাকে বানিয়ে দিতে পারেন এই আম সুজি কেক, স্কুলের লাঞ্চ বক্সেও বাজিমাত করবে আপনার তৈরী এই ঘরোয়া কেকটি৷

উপকরণ :
১. সুজি ১ কাপ,
২. আমের শাঁস (পাল্প) ১ কাপ,
৩. তেল অথবা বাটার আধ কাপ,
৪. চিনি আধ কাপ,
৫. বেকিং পাউডার ১/২ চা-চামচ,
৬. এলাচগুঁড়ো আধ চা-চামচ,
৭. কিশমিশ ১/৪ কাপ,

প্রণালি :
ওভেন ১৬০/৮০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় প্রি হিট হতে দিন। আমের শাঁস ছাড়া সুজির সঙ্গে সব উপকরণ মিশিয়ে নিন। তারপর আমের শাঁস (পাল্প) মিশিয়ে বেকিং ডিশে ঢেলে দিন।ওভেনে দেওয়ার আগে ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। ২৫ থেকে ৩০ মিনিট বেক করুন।

দেওয়া সময় শেষ হলে কেকের ভেতরে একটি কাঠি ঢুকিয়ে দেখে নিন কাঁচা রয়েছে কিনা। কাঁচা থাকলে সময় আর একটু বাড়িয়ে বেক করুন। আর হয়ে গেলে সম্পূর্ণ ঠাণ্ডা করে নিন। পরিবেশন পাত্রে কেক উল্টিয়ে বের করে কেটে পরিবেশন করুন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনাকালে বিনোদন দুনিয়ায় কী পরিবর্তন? জানাচ্ছেন, চলচ্চিত্র সমালোচক রত্নোত্তমা সেনগুপ্ত I