স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এটাই নতুন নয়। এর আগেও প্রতিবাদে গর্জে উঠেছিলেন তিনি। ফের প্রতিবাদে কলম ধরলেন কবি মন্দাক্রান্তা সেন। এক সময় দেশব্যাপী অসহিষ্ণুতার জেরে সাহিত্য আকাদেমি যুব পুরস্কার ফিরিয়েছিলেন মন্দাক্রান্তা। সারা বছর সরকারের বিরধীতায় সরব হতে দেখা যায় প্রতিক্রিয়াশীল এই কবিকে। চলতি বছর আমেরিকার বঙ্গ সম্মেলনে ডাক পেয়েও ভিসা পাননি তিনি।

তবু বরাবর তিনি প্রতিবাদী। অন্যায়ের বিরুদ্ধে হাতে তুলে নেন কলম। তাঁর প্রতিবাদের ভাষা কবিতা। পশ্চিমবঙ্গের শাসকের নিন্দা থেকে শুরু করে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের বিরোধিতা করা কবি মন্দাক্রান্তা সেনের স্বভাবসিদ্ধ। কবিতার জন্য পেয়েছেন আনন্দ পুরস্কার। বৃহস্পতিবার বেকার তরুণদের পাশে দাঁড়াতে গিয়ে ফের তিনি হাতে তুলে নিলেন কলম। নিজের ফেসবুক দেওয়ালে ‘সিঙ্গুর থেকে নবান্ন’ নামের কবিতায় তিনি লেখেন–

লড়াই হয়েছে শুরু, যে লড়াই অবশ্যম্ভাবী
পায়ে পা মিলিয়ে আজ হেঁটে যাচ্ছে আমাদের দাবি
তরুণেরা কাজ চায়, ছাত্র চায় শিক্ষা যথাযথ
তোমার আমার দাবি একই সাথী, এক হোক পথও

এস আজ নীলাকাশে তুলে ধরি রক্ত নিশান
প্রতিবাদে প্রতিবাদে আমাদের রোখে দিই শান
এ মিছিল সকলের এ মিছিল আমাদের দায়
আমাদের যত দাবি আজ তাকে করব আদায়

বন্ধ যত কারখানা, বেকারের জীবন আঁধার
আমরা আজ লড়ে যাচ্ছি, না, পরোয়া করি না
বাধার কোনওই চাপের কাছে স্বীকার করি না আমরা নতি
আমরা তো ছাত্র দল, আমরা যুবক মেহনতি

আমাদের আটকাবে? বল কার আছে সেই বল
পথের দখল নিচ্ছে প্রতিবাদী তরুণের দল

আজ রাজপথ জুড়ে নেমে আসছে তারুণ্যের ঢল

কবিতাটি পড়ে বোঝাই যাচ্ছে যুবকদের কাজের অভাব পীড়া দিচ্ছে কবিকে। গত এক দশক ধরে বাংলার কর্মক্ষত্রে যে শূন্যস্থান তৈরি হয়েছে তার জন্য ব্যথিত মন্দাক্রান্তা। তিনি বিশ্বাস করেন একদিন যুবকের দল রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে গর্জে উঠবে।