ম্যাঞ্চেস্টার: ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড খেতাব জয় থেকে পিছু হটলেও রবিবাসরীয় ম্যাঞ্চেস্টার ডার্বি ঘিরে উত্তেজনার বেশ কিছু কারণ ছিল। প্রিমিয়র লিগে প্রথম দু’ইয়ে থেকে দুই প্রবলতর প্রতিপক্ষ ডার্বিতে মুখোমুখি হচ্ছে এমনটা সাম্প্রতিক অতীতে দেখা যায়নি। ডার্বি জিতে পেপের ২১ ম্যাচ জয়ের অশ্বমেধের দৌড় জারি থাকবে কীনা অথবা লিগ কাপ সেমিফাইনালের বদলা কী আদৌ নিতে পারবে সোল্কজায়েরের ছেলেরা? এমনই সব প্রশ্নের উত্তর লুকিয়ে ছিল রবিবারের ম্যাঞ্চেস্টারের ডার্বিতে।

অবশেষে গত ২৮ ম্যাচে অপরাজিত আকাশী ম্যাঞ্চেস্টারের অপরাজিত থাকার দৌড় থামিয়ে ফের ম্যাঞ্চেস্টার ডার্বির রং হল লাল। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বীদের কাছে লিগ খেতাবের দৌড়ে পিছিয়ে পড়া লাল ম্যাঞ্চেস্টারের কাছে এই জয় ক্ষতে অনেকটা প্রলেপ লাগিয়ে দিল। দুই অর্ধে এদিন ইউনাইটেডের হয়ে গোলদু’টি করলেন ব্রুনো ফার্নান্দেজ এবং লুক শ। সিটির ঘরের মাঠে এদিন ইউনাইটেডের দাপট শুরু ম্যাচের প্রথম মিনিটেই। মাত্র ৩৮ সেকেন্ডের মাথায় বল পায়ে অ্যান্থনি মার্শিয়ালকে বক্সে ফাউল করে বসেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। পেনাল্টি পায় ইউনাইটেড।

গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে শুরুতেই এগিয়ে যাওয়ার সুবর্ণ সুযোগ অপচয় করেননি ব্রুনো ফার্নান্দেজ। স্পটকিক থেকে পর্তুগিজ ফুটবলারের জোরালো শট জড়িয়ে যায় জালে। গত ১৯টি লিগ ম্যাচে একটি মিনিটের জন্যেও পিছিয়ে না থাকা সিটি শুরুতেই গোল হজম করে নড়ে যায় কিছুটা। সেই সুযোগে প্রথম গোলের অনতিপরেই ফের একবার গোলের কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন লুক শ। গোলে শটটি নেওয়ার ক্ষেত্রে আরেকটু তৎপর থাকলে ব্যবধান বাড়তেই পারত। এরপর প্রথমার্ধে আক্রমণ প্রতি-আক্রমণের মাঝে দু’দলের গোলরক্ষকের থেকে বেশ কিছু দুরন্ত সেভের দেখা মেলে। বিরতিতে যাওয়ার ঠিক আগে মাহরেজের মাটি ঘেঁষা ক্রসে অল্পের জন্য পা ছোঁয়াতে ব্যর্থ হন জেসুস। নইলে পাপের প্রায়শ্চিত্তটা সেরে ফেলতে পারতেন ব্রাজিলিয়ান।

বিরতির পরেও শুরুটা দারুণ হতে পারত আকাশী ম্যাঞ্চেস্টারের। কিন্তু ৪৮ মিনিটে রড্রির গোলার মতো শট ক্রসবার কাঁপিয়ে বাইরে চলে যায়। উলটে দু’মিনিট বাদে ফের গোল হজম করে বসে পেপের দল। প্রতি আক্রমণে কার্যত একক দক্ষতায় নিজেদের অর্ধ থেকে বল বিপক্ষ বক্সে টেনে নিয়ে যান লুক শ। এরপর মার্কাস র‍্যাশফোর্ডের সঙ্গে বিপক্ষ বক্সে বল দেওয়া-নেওয়া করে গোল লক্ষ্য করে বাঁ-পায়ের একটি গ্রাউন্ডার রাখেন ম্যান ইউ’য়ের লেফট-ব্যাক। শ’র দ্বিতীয় পোস্টে রাখা সেই শট দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া কোনও উপায় ছিল না সিটি গোলরক্ষকের।

৬৮ মিনিটে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে মোরায়েসের হাতে বল মারেন মার্শিয়াল। তেমনই ৭৫ মিনিট এবং ৭৯ মিনিটে সিটিকে ম্যাচে ফেরানোর সুবর্ণ সুযোগ নষ্ট করেন ফডেন এবং স্টার্লিং। শেষ অবধি উত্তেজক ডার্বিতে অটুট থাকে ইউনাইটেডের দুর্গ। ২-০ ম্যাচ জিতে শীর্ষস্থানে থেকে সিটির (৬৫) সঙ্গে ব্যবধান কমিয়ে ১১-তে নিয়ে আসলেন রাশফোর্ডরা (৫৪)। হাতে রইল দশ ম্যাচ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।