ম্যাঞ্চেস্টার: পাঁচ গোলের থ্রিলারে লিভারপুলকে হারাল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইডেট৷ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে এফএ কাপে চতুর্থ রাউন্ডের লড়াইয়ে লিভারপুলকে ৩-২ গোলে হারিয়ে শেষ ষোলোয় পৌঁছে গেল ম্যান ইউ৷ হেরে এফএ কাপ থেকে ছিটকে গেল লিভারপুল৷

শুরুতে পিছিয়ে পড়া ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে জয় তুলে নেয়৷ নিজেদের মাঠ ওল্ড ট্র্যাফোর্ডে রোমাঞ্চকর জয় তুলে নেয় দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১২ বারের চ্যাম্পিয়ন ম্যান ইউ। মহম্মদ সালাহের গোলে লিভারপুল এগিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই দলকে সমতায় ফেরান ম্যাসন গ্রিনউড। মার্কাস র‍্যাশফোর্ড ইউনাইটেডকে এগিয়ে নেওয়ার পর লিভারপুলকে সমতায় ফেরান সালাহ। কিন্তু পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নেমে জয়সূচক গোলটি করেন ব্রুনো ফের্নান্দেস।

লিভারপুলের বিরুদ্ধে ম্যান ইউ কোচ ওলে গুনারের এটি প্রথম জয়৷ পঞ্চমবারের চেষ্টায় জয়ের জায়েন্টের বিরুদ্ধে জয়ের মুখ দেখলেন তিনি৷ জয়ের পর গুনার বলেন, ‘আমাদের কাছে এই জয়টা অন্য অনুভূতি৷ দল যেভাবে খেলেছে, তাতে আমি খুশি৷ খেলোয়াড়দের প্রতি আমাদের ভরসা ছিল৷ আমরা এখনও আরও শক্তিশালী হচ্ছি৷ আগেও আমরা ভালো খেলেছি৷ কিন্তু এদিন আমাদের দল নির্বাচন ইতিবাচক ছিল৷ এই আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে সাহয্য করবে৷

গত সপ্তাহে অ্যানফিল্ডে ইংলিশ প্রিমিয়র লিগে দুই দলের লড়াই গোলশূন্যে শেষ হয়েছিল। কিন্তু এফএ কাপের লড়াইয়ে বাজিমাত করল ম্যান ইউ৷ শুরুতে দুই ফরোয়ার্ডের নৈপুণ্যে ১৮ মিনিটে এগিয়ে যায় লিভারপুল। রবের্তো ফিরমিনোর পাস ধরে ডি-বক্সে ঢুকে চিপ শটে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল জালে পাঠান মিশরের ফরোয়ার্ড সালাহ।

কিন্তু ব্যবধান বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি লিভারপুল৷ ২৬ মিনিটে পালটা আক্রমণে গোল করে ম্যান ইউক-কে সমতায় ফেরান গ্রিনউড৷ মাঝমাঠ থেকে র‍্যাশফোর্ডের লম্বা করে বাড়ানো বল ধরে ডি-বক্সে ঢুকে গোলরক্ষক আলিসনকে পরাস্ত করে গোলে বল জড়ান গ্রিনউড।

দ্বিতীয়ার্ধের তৃতীয় মিনিটে র‍্যাশফোর্ডের গোলে ইউনাইটেড এগিয়ে গেলেও তাদের আনন্দও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি। ৫৮ মিনিটে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলে লিভারপুলকে সমতায় ফেরান সালাহ। বদলি নেমে ব্যবধান গড়ে দেন ফের্নান্দেস। ৭৮মিনিটে ফ্রি-কিকে জয়সূচক গোলটি করেন তিনি। শেষ ষোলোয় ঘরের মাঠে ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের মুখোমুখি হবে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।