বার্নলি: প্রিমিয়র লিগের অ্যাওয়ে ম্যাচে দাপুটে জয় দিয়ে বছর শেষ করল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড৷ বার্নলি এফসিকে তাদের ঘরের মাঠে ২-০ গোল পরাজিত করল রেড ডেভিলসরা৷ ম্যাচের দুই অর্ধে ম্যাঞ্চেস্টারের হয়ে গোল করেন অ্যান্থনী মার্শাল ও মার্কাস রাশফোর্ড৷

ওয়াটফোর্ডের কাছে শেষ অ্যাওয়ে ম্যাচে হারের পর ঘরের মাঠে নিউক্যাশলের বিরুদ্ধে বড় জয় পেয়েছিল ম্যান ইউ৷ সেই আত্মবিশ্বাস কাজে লাগিয়ে বার্নলির বিরুদ্ধে জয় তুলে নিল তারা৷ উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, গত সেপ্টেম্বরের পর এই প্রথম লিগের ম্যাচে কোনও গোল না খেয়ে ম্যাচ জিতল ইউনাইটেড৷ শেষবার তারা ঘরের মাঠে লেস্টারকে ১-০ গোলে হারিয়েছিল৷

আরও পড়ুন: পিছিয়ে পড়েও চার্চিলকে হারাল অ্যারোজ, শীর্ষে থেকেই বছর শেষ করছে ইস্টবেঙ্গল

এই জয়ের ফলে ২০ ম্যাচে ৩১ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের পাঁচ নম্বরে উঠে এল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড৷ তারা পিছনে ফেলে দিল শেফিল্ড ইউনাইটেড, উলভারহ্যাম্পটন ও টটেনহ্যামকে৷ বার্নলিকে অবশ্য ২০ ম্যাচে ২৪ পয়েন্ট নিয়ে ১৩ নম্বরে নেমে যেতে হয়৷

ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড ২০১১ সাল থেকে বছরের শেষ ম্যাচে কখনও হারেনি৷ সেই ধারা তারা বজায় রাখল৷ অন্যদিকে বার্নলির রেকর্ডও ছিল খানিকটা একই রকম৷ ২০১২ সাল থেকে বর্ষশেষের কোনও ম্যাচে তারা হারেনি এর আগে পর্যন্ত৷ সেই ধারাটায় ছেদ পড়ল এবার৷

আরও পড়ুন: ৪ মিনিটের নীল বিপ্লবে জয়ের স্বপ্ন ধূলিসাৎ গানার্সদের

ম্যাচের ৪৪ মিনিটে আন্দ্রেয়াজপেরেইরার পাস থেকে গোল করে ইউনাইটেডকে ১-০ এগিয়ে দেন মার্শাল৷ শেষ দু’টি ম্যাচে এটি তাঁর তৃতীয় গোল৷ নিউক্যাশলের বিরুদ্ধে ঘরের মাঠে জোড়া গোল করেছিলেন তিনি৷ দ্বিতীয়ার্ধের ইনজুরি টাইমে ম্যান ইউয়ের হয়ে দ্বিতীয় গোল রাশফোর্ডের৷ ৯০+৫ মিনিটে জেমসের পাস থেকে বার্নলির জালে বল জড়ান তিনি৷

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ