ম্যাঞ্চেস্টার: প্রিমিয়র লিগে জয়ে ফিরল ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। নরউইচ সিটির কাছে অপ্রত্যাশিত হার ভুলে পরের ম্যাচেই প্রিমিয়র লিগে নিজেদের সর্বাধিক ব্যবধানে জয়ের রেকর্ড গড়ল স্কাই ব্লুজ’রা। এক, দুই কিংবা তিন নয়, শনিবার পরিষ্কার আট গোলে বিপক্ষ ওয়াটফোর্ডকে মাটি ধরাল পেপ গুয়ার্দিওলা’র ছেলেরা। প্রিমিয়র লিগে এদিন কেরিয়ারের প্রথম হ্যাটট্রিক করলেন সিটি মিডফিল্ডার বার্নার্দো সিলভা। এছাড়াও গোলের খাতায় নাম তুললেন দাভিদ সিলিভা, সার্জিও আগুয়েরো, রিয়াদ মাহরেজ, নিকোলাস ওটামেন্ডি ও কেভিন ডি ব্রুয়েনা।

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে শাখতার দোনেৎস্কের বিরুদ্ধে জয়ে রেশ ধরে রেখে ঘরের মাঠে এদিন আক্রমণাত্মক শুরু করে সিটি। ম্যাচ শুরুর প্রথম ১৮ মিনিটের মধ্যেই বিপক্ষের জালে ৫ বার বল জড়ান সিটি ফুটবলাররা, যা প্রিমিয়র লিগ ইতিহাসে প্রথম। সেখানেই স্পষ্ট হয়ে যায় ম্যাচের ললাটলিখন। ডি ব্রুয়েনার দুরন্ত ক্রস থেকে ম্যাচের ৫২ সেকেন্ডে সিটির হয়ে গোলের খাতা খোলেন দলনায়ক দাভিদ সিলভা। চতুর্থ মিনিটে সমতায় ফেরার সুবর্ণ সুযোগ এলেও ব্যর্থ হয় ওয়াটফোর্ড।

এরপর ৭ মিনিটে দ্বিতীয় গোল পেনাল্টি থেকে। দি ব্রুয়েনার থ্রু ধরে আগুয়ান রিয়াদ মাহরেজকে পেনাল্টি বক্সের মধ্যে অবৈধ ফাউল করে বসেন ওয়াটফোর্ড গোলরক্ষক বেন ফস্টার। স্পটকিক থেকে ব্যবধান ২-০ করেন সার্জিও আগুয়েরো। একইসঙ্গে প্রিমিয়র লিগে তাঁর শততম গোলটি তুলে নেন সিটি কিংবদন্তি। ১২ মিনিটে বক্সের সামান্য বাইরে ফ্রি-কিক পায় ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরা। ফ্রি-কিক থেকে রিয়াদ মাহরেজের নেওয়া শট মানবপ্রাচীরেপ্রতিহত হয়ে ঢুকে যায় গোলে।

১৫ মিনিটে সিটির চতুর্থ গোলটিও সেটপিসের ফসল। ডি ব্রুয়েনার কর্ণার থেকে আংশিক প্রতিহত হওয়া বল হেডে জালে রাখেন বার্নার্দো সিলভা। শরীর ছুঁড়ে দিয়ে পর্তুগিজ মিডিও’র দর্শনীয় গোল সিটিকে ৪-০ গোলে এগিয়ে দেয়। ১৮ মিনিটে গোলের খাতায় নাম তোলেন ডিফেন্ডার ওটামেন্ডি। স্বদেশী আগুয়েরোর পাস থেকে অনবদ্য স্লাইডারে দলকে ৫ গোলে এগিয়ে দেন আর্জেন্তাইন ডিফেন্ডার। প্রথমার্ধে বাকি সময়টা অক্ষত থাকে ওয়াটফোর্ড রক্ষণ। যদিও সিটি ও গোলের মাঝে বারদু’য়েক বাধা হয়ে দাঁড়ায় পোস্ট।

দ্বিতীয়ার্ধে ৪৮ মিনিটে দ্বিতীয় গোল বার্নার্দো সিলভার। দাভিদ সিলভার পাস থেকে বিপক্ষ রক্ষণকে খানিকটা বোকা বানিয়ে নিজের দ্বিতীয় ও দলের ষষ্ঠ গোলটি তুলে নেন পর্তুগিজ মিডফিল্ডার। ১২ মিনিট বাদে ডি ব্রুয়েনার ডানপ্রান্তিক ক্রস থেকে ব্যবধান ৭-০ করেন সিলভা। সেইসঙ্গে প্রিমিয়র লিগে নিজের পয়লা নম্বর হ্যাটট্রিকও সম্পন্ন করেন তিনি। খেলা শেষের মিনিট পাঁচেক আগে ওয়াটফোর্ডের রক্ষণে শেষ পেরেকটি পুঁতে দেন ডি ব্রুয়েনা। একাধিক ক্ষেত্রে অ্যাসিস্টরের ভূমিকা পালনের পর অবশেষে গোলের খাতায় নাম তোলেন তিনি।

৮৫ মিনিটে পেনাল্টি বক্সের মধ্যে থেকে কোনাকুনি জোরালো শটে ব্যবধান ৮-০ করেন বেলজিয়ান মিডিও। এই জয়ের ফলে ৬ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয়স্থানে উঠে এল সিটি। ৫ ম্যাচের সবক’টিতে জিতে আপাতত লিগ শীর্ষে লিভারপুল।