স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন, জাতীয় নাগরিকপঞ্জির বিরোধিতাকে হাতিয়ার করে সাধারণতন্ত্র দিবসে দেশ জুড়ে ‘সংবিধান বাঁচাও’ কর্মসূচি পালন করল বামপন্থীরা। ১৭টি বামপন্থী দলের এই যৌথ কর্মসূচিতে যোগ দিতে দেখা গেল কংগ্রেসকেও। এন্টালিতে বিমান বসুর সঙ্গে ছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস নেতা সোমেন মিত্রও। অনুষ্ঠান চলল জেলার ব্লক স্তরেও।

রবিবার কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী, দেশের সর্বত্র পালিত হয়েছে মানববন্ধন কর্মসূচি। এরাজ্যে বামপন্থীদের কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছে কংগ্রেসও। সকাল সাড়ে দশটা থেকে সব জায়গায় শুরু হয় অনুষ্ঠান। ঘন্টাখানেক ধরে তা চলে। এন্টালিতে বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু এবং ঢাকুরিয়াতে রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্রর নেতৃত্বে মানববন্ধন করেন সিপিএম নেতা, কর্মী, সমর্থকরা। সেখান থেকে একটাই বার্তা দিলেন সকলে।

যৌথ কর্মসূচিতে এদিন আরও একবার নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বা কেন্দ্রীয় বিলের বিরুদ্ধে মানুষকে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানালেন সূর্যকান্ত মিশ্র ৷ তার পাশাপাশি কাউকে কোনও কাগজ না দেখানোর পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। ঢাকুরিয়ায় দু’ঘণ্টার বিক্ষোভ অবস্থানে কেন্দ্র এবং রাজ্যের সরকারকে সতর্ক করে সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন , “আমদের জাতীয় সংগীতে উল্লেখ আছে যেখানে কোনও ভেদাভেদ থাকবে না, জাতিভেদ থাকবে না ৷ যেখানে সমস্ত সংস্কৃতির মিলনক্ষেত্র হবে ৷ তাই যারা এই সব হিন্দু-মুসলমান তত্ত্ব আবিষ্কার করেছিলেন তারা মূলত আরএসএস সংঘের৷” তাদের এই কর্মসূচীতে যোগ দিয়েছিলেন কবি মন্দাক্রান্তা সেনও ।

এদিন পথে নেমে সিপিএমের কর্মসূচির পাশাপাশি দিনভর সোশ্যাল মিডিয়াতেও ভাইরাল হল বিশিষ্টজনদের বক্তব্য। সেই বক্তব্য হাতিয়ার করলেন বাম নেতারাও। অপর্ণা সেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অঞ্জন দত্ত, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, ঋদ্ধি সেন, জয়ন্ত কৃপালনিরা একে একে পড়লেন সংবিধানের প্রস্তাবনাগুলি। ‘সিটিজেন্স স্পিক ইন্ডিয়া’-র তরফে প্রকাশিত সেই ভিডিও প্রচারিত হল সোশ্যাল মিডিয়ায় বামপন্থী গ্রুপগুলিতে।