ছবি সৌজন্য: দেবলীনা সেনের ফেসবুক৷

কলকাতা: সাম্প্রতিক কালে পার্কস্ট্রিট ‘মোক্যাম্বো’, এবার কলকাতার বিলাসবহুল ‘কোয়েস্ট মল’৷ আবারও পরিধান ফতোয়ার অদৃশ্য খাঁড়া নেমে এলো দুই কলকাতাবাসীর কপালে৷

শনিবার বাঙালির ঐতিহ্যবাহী ধুতি পরে পাক সার্কাসের কোয়েস্ট মলে ঢুকতে গিয়েছিলেন এক ব্যক্তি ও তাঁর বন্ধু দেবলীনা সেন৷ বিপত্তি ঘটে মলের গেটে পৌঁছে৷ তাঁদের আটকান মলের নিরাপত্তারক্ষীরা৷ ‘ধুতি বা লুঙ্গি জাতীয় পোশাক পরে মলে ঢোকা যাবে না৷’ দেবলীনাদের স্পষ্ট ভাষায় জানিয়েদেন তারা৷ ‘ইংরাজি’তে কারণ জিজ্ঞাস করা হলে, হাতে থাকা ওয়াকি-টকি’তে উপর মহলের সঙ্গে কথা বলেন নিরাপত্তারক্ষীরা৷

সঙ্গে সঙ্গে আসে ঘটনায় নাটকীয় মোড়! শেষমেষ দেবলীনা সেন ও তাঁর বন্ধুকে মলে ঢুকতে দেয় সেই পথ আটকানো নিরাপত্তারক্ষীরাই৷ কেন? সম্পূর্ণ ঘটনাটি নিজের ফেসবুক পেজে শনিবার দিয়েছেন দেবলীনা সেন৷ সেখানেই তিনি জানান, ইংরেজি বলিয়ে হওয়ায় তাদের মলে ঢুকে দেওয়া হয়৷ এখানেই উঠছে প্রশ্ন, যদি কোনও ইংরেজি ভাষা না জানা ব্যক্তি ধুতি পরে কোয়েস্ট মলে ঢুকতে যেতেন তবে তাঁর কী হত? ইংরেজি ভাষা জানা বা না জানা কী মলে প্রবেশের মাপকাঠি হতে পারে? উঠছে এই প্রশ্ন৷

ঘটনা এখানেই শেষ নয়৷ দেবলীনা তাঁর ফেসবুকে জানিয়েছেন, উচ্চতর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলতে গেলে তাদের পরিষ্কার বলে দেওয়া হয় ধুতি বা লুঙ্গি পরে তাদের মলে প্রবেশ নিষেধ৷ অবশেষ মল ছেড়ে যাওয়ায়ই শ্রেয় বলে মনে করেন দেবলীনা ও তাঁর বন্ধুটি৷ বাড়ি ফিরে ঘটনাটির সম্পূর্ণ ভিডিও রেকর্ড, ছবি ও বিবরণ ফেসবুকে দেন দেবলীনা৷ ইতিমধ্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল তাঁর পোস্ট৷