হায়দরাবাদ: ভিন দেশে বিপাকে পরেছে পুত্র। দেশে ফেরাতে সরকারের সাহায্য প্রার্থণা করছেন পিতা।

ঘটনাটি নিজামের শহর হায়দরাবাদের। সাহায্যপ্রার্থী ওই পিতার নাম রহিম উদ্দিন। গত এক মাসেরও বেশি সময় ধরে তাঁর পুত্র ইতালির জেলে বন্দি।

গ্রেফতার হওয়া ওই ভারতীয় ছেত্রের নাম মহম্মদ ঘোউস উদ্দিন। পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৬ সাল থেকে সে ইতালিতে রয়েছে। স্কলারশিপ পেয়ে এবং রোম শহরে ছট কাজ করে নিজের পড়ার খরচ চালাচ্ছিল সে। গত বছরে দেশে ফিরলেও মাস ছয়েক আগে লেখাপড়া শেষ করতে ফের ইতালি পারি দিয়েছিল মহম্মদ ঘোউস উদ্দিন।

বিপত্তি ঘটেছে গত এক মাস আগে। একটি হোটেলে কাজ করতো ভারতীয় ছাত্র মহম্মদ ঘোউস উদ্দিন। সেখানে এক ব্যক্তির সঙ্গে তার বচসা হয়। সেই বচসা ক্রমে হাতাহাতির আকার নেয়। যার কারণে স্থানীয় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে। গত মার্চ থেকে সে রোমের জেলে বন্দি।

গ্রেফতার করার পরে শারিরিক পরীক্ষায় জানা গিয়েছে যে ধৃত মহম্মদ ঘোউস মানসিক ভারসাম্যহীন। তাকে ভারতে ফেরত পাঠাতে চায় ইতালি প্রশাসন। ওই দেশের আদালতের পক্ষ থেকেও তেমনই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তার পরিবারের পক্ষ থেকে ইতালি গিয়ে ছেলেকে নিয়ে আসা সম্ভব নয়। সেই কারণেই সরকারের সাহায্য চাইছে তার পরিবার।

ছেলের মানসিক ভারসাম্যহীনতার বিষয়ে রহিম উদ্দিন জানিয়েছেন যে পুত্র মহম্মদ ঘোউস মানসিক রোগের শিকার ছিল। কিন্তু ভারতের থাকাকালীন সে চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সেরে উঠেছিল। তারপরেই সে লেখাপড়ার জন্য ইতালি যায়। একই সঙ্গে তিনি আরও জানিয়েছেন, “সরাকারিভাবে ইতালি থেকে আমায় ফোন করা হয়েছিল। ওই দেশে গিয়ে ছেলেকে ফিরিয়ে নিয়ে আসার জন্য। কিন্তু আমি অত্যন্ত গরিব মানুষ। আমার পক্ষে যাতায়াতের খরচ বহন করা সম্ভব নয়। সেই কারণে আমি কেন্দ্র এবং রাক্য সরকারের সহায়তা প্রার্থণা করছি।”