কলকাতা: সব কিছু পরিকল্পনা মাফিক এগলে চলতি বছরেই যুবভারতী ক্রিড়াঙ্গনে ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে ম্যাচ খেলতে পারে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড৷ প্রিমিয়র লিগ জায়ান্টদের তরফে প্রাক মরশুম প্রস্তুতি ম্যচের জন্য সবুজ সংকেত পাঠানো হয়েছে লাল-হলুদ শিবিরে৷

ক্লাবের শতবর্ষ উদযাপনে চলতি মরশুমে চমক দিতে চাইছিলেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা৷ ক্লাবের মাইলস্টোন বছরকে স্মরণীয় করে রাখতে ইউরোপের প্রথমসারির কোনও ক্লাবকে যুবভারতীতে হাজির করাতে বদ্ধপরিকর ছিল লাল-হলুদ কর্তৃপক্ষ৷ সেই মতো আলোচনা চালানো হচ্ছিল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড, লিভারপুল, বায়ার্ন মিউনিখ ও পিএসজি’র সঙ্গে৷

আরও পড়ুন: জুভেন্তাসের জার্সিতে হাফসেঞ্চুরি রোনাল্ডোর

গত বছর নভেম্বরে ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেডের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল ঘুরে গিয়েছে শহরে৷ ইস্টবেঙ্গল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক ছাড়াও যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনও পরিদর্শন করেছেন ম্যান ইউয়ের প্রতিনিধিরা৷ সব কিছু দেখে শুনে প্রীতি ম্যাচের খেলতে শেষমেশ কলকাতায় আসার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেড ডেভিলসরা৷

প্রাথমিক কথাবার্তা এগলেও সরকারিভাবে দিন-ক্ষণ স্থির হয়নি এখনও৷ শোনা যাচ্ছে আগামী ২৪ অথবা ২৬ জুলাই খেলা হতে পারে ম্যাচটি৷ ইস্টবেঙ্গল ক্লাবের তরফে ম্যান ইউয়ের সম্মতি জানানোর কথা স্বীকার করে নেওয়া হলেও ম্যাচ নিয়ে নিশ্চিত কিছু জানানো হয়নি৷ মার্চেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে৷ আসলে রেড ডেভিলসদের শহরে আনতে গেলে বিপুল পরিমাণ অর্থ দিতে হবে ইস্টবেঙ্গলকে৷ দু’দফায় সেই অর্থ প্রদানের বিষয়টিই এখন আলোচনার মুখ্য বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে৷

আরও পড়ুন: ফের বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারের দায়িত্ব পেতে পারে যুবভারতী

তবে লাল-হলুদ সমর্থকরা আশাবাদী যে জুলাইয়ে ঐতিহাসিক ম্যাচের সাক্ষি থাকতে পারবেন তারা৷ ক্লাবের তরফে অবশ্য এটা নিশ্চিত করা হয়েছে যে, শহরে এলে ম্যান ইউ তাদের প্রথম সারির দল নিয়েই মাঠে নামবে ইস্টবেঙ্গলের বিরুদ্ধে৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।