প্রতীকী ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: শাশুড়ি-জামাইয়ের সম্পর্ক সাধারণত মা-ছেলের মতোই হয়৷ সেই সম্পর্ক নিয়ে সন্দেহ না হওয়াই স্বাভাবিক৷ তাই সন্দেহ হয়েওনি সুদেষ্ণা পাড়িয়ার৷

কিন্তু আচমকাই একদিন ভুল ভাঙে পূর্ব মেদিনীপুরের পাঁশকুড়া থানা এলাকার ওই গৃহবধূর৷ উত্তর মেচগ্রামের বাড়িতে তিনি একদিন স্বামীর সঙ্গে নিজের মাকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখে ফেলেন৷

আরও পড়ুন: কেরলের পাশে শহরের দুর্গাপুজোর উদ্যোক্তারা

সুদেষ্ণার দাবি, ১৭ বছর আগে প্রসেনিজৎ পাড়িয়ার সঙ্গে তাঁর বিয়ে হয়৷ দু’জনের ১৪ বছরের ছেলেও রয়েছে৷ তার পরও তাঁর স্বামীকে গত পাঁচ বছর ধরে তাঁর মায়ের সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক চালিয়ে যাচ্ছিল৷

ব্যস৷ তার পর থেকেই শুরু অশান্তির৷ মা ও স্বামীর পরকীয়ার সম্পর্ক ভাঙতে সরব হয়েছিলেন সুদেষ্ণা৷ এ নিয়ে তাঁদের পরিবারে ঝগড়া লেগেই থাকত৷ মঙ্গলবার রাতেও একই বিষয় নিয়ে ঝামেলা শুরু হয়৷

আরও পড়ুন: ‘গার্লফ্রেন্ড’র সঙ্গে বিদেশ পাড়ি দিলেন বনি

সুদেষ্ণার দাবি, তাঁর স্বামী তাঁকে মারধর করে৷ তার পর গলায় দড়ি দিয়ে শ্বাসরোধ করে খুন করার চেষ্টা করে৷ সেই সময় তাঁর চিৎকারে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা৷ তাঁরাই সুদেষ্ণাকে উদ্ধার করেন৷ হাসপাতালে নিয়ে যান৷

পরে পুলিশের কাছে সুদেষ্ণা অভিযোগ দায়ের করেন৷ সুদেষ্ণার দাবি, তাঁকে খুন করতে পারলে মা ও স্বামীর পথের কাঁটা সরে যেত৷ সেই কারণেই তাঁকে খুনের চেষ্টা করা হয়৷ এতে তাঁর মায়েরও ইন্ধন ছিল বলে সুদেষ্ণার দাবি৷

আরও পড়ুন: ছোট্ট পাখির পিগি বক্স বন্যার কেরলের অনুদান

সুদেষ্ণার অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশ প্রসেনজিৎকে গ্রেফতার করে৷ বুধবার তাঁকে আদালতে পেশ করা হয়৷ বিচারক তাঁকে বিচারাধীন হেফাজতে পাঠিয়েছে৷ অন্যদিকে এই ঘটনার পর থেকে সুদেষ্ণার মা পলাতক৷ তাঁর সন্ধানে পুলিশ তল্লাশি চালাচ্ছে৷ পুলিশের দাবি, শীঘ্রই তাকে গ্রেফতার করা হবে৷

প্রতীকী ছবি

তবে এই ঘটনায় হইচই পড়ে গিয়েছে জেলাজুড়ে৷ শাশুড়ি ও জামাইয়ের মধ্যে পরকীয়া কীভাবে হল, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে জেলাবাসী৷ প্রতিবেশী-সহ অনেকেই দু’জনের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছে৷

আরও পড়ুন: কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বন্ধ জাঙ্ক ফুড? ইঙ্গিত ইউজিসির