লন্ডন: এই মুহূর্তে করোনা আতঙ্কে ত্রস্ত গোটা বিশ্ব। কিন্তু তাঁর মধ্যেও সামনে এল এক নয়া তথ্য। সম্প্রতি লন্ডনের এক ব্যক্তি রক্তে সংক্রমণের জেরে হারিয়েছিলেন নিজের যৌনাঙ্গ। কিন্তু ডাক্তারদের সহায়তাতে ফিরে পেলেন কৃত্রিম যৌনাঙ্গ। হয়ে উঠলেন পৃথিবীর প্রথম ব্যক্তি যার নিজের শরীরের অংশ দিয়ে তৈরি করা হল কৃত্রিম যৌনাঙ্গ।

ম্যালকম ম্যাকডোনাল্ড নামের ওই ব্যক্তি দীর্ঘ দিন ধরে ভুগছিলেন রক্তের সংক্রমনে। যার জেরে তাঁর পায়ের পাতা, আঙ্গুল এবং যৌনাঙ্গ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছিল। পরবর্তীকালে ওই সংক্রমণ জটিল হয়ে ওঠার ফলে বাধ্য হয়ে তাকে নিজের যৌনাঙ্গ হারাতে হয়। আর ওই ঘটনার পর থেকেই তিনি ক্রমশ ডুবে জেটে থাকেন অবসাদে পাশপাশি মদ্যপান করা শুরু করেছিলেন।

নিজের যৌনাঙ্গ হারিয়ে মানসিক ভাবে যথেষ্ট আঘাত পেয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। পাশাপাশি আত্মবিশ্বাস হারিয়ে ফেলেছিলেন। অর্থাৎ সুস্থ হয়ে উঠলেও সবরকম উদ্যম হারিয়ে ফেলেছিলেন তিনি। আর সেই কারণেই তিনি তীব্র ভাবে মদ্যপানে আসক্ত হয়েছিলেন। নিজের পরিবারের সদস্যদের সামনে দাঁড়ানোর সাহস পর্যন্ত তাঁর ছিল না।

আর তারপরেই তিনি লন্ডন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ডেভিড রালফ এর সন্ধান পান। ওই অধ্যাপকের সঙ্গে সমস্ত বিষয়টি নিয়ে কথা বলেন তিনি। ওই ডাক্তার তথা অধ্যাপক তাকে জানান এই সমস্যা থেকে সমাধান পাওয়া সম্ভব। তবে তা সময়সাপেক্ষ। সামান্য আশা দেখতে পাওয়াতে ওই ব্যক্তি এই সিদ্ধান্তে রাজি হয়ে গিয়েছিলেন। তারপরে ধীরে ধীরে এই বিষয়টি নিয়ে এগোতে শুরু করেন তারা।

এই ঘটনাটি আজ থেকে চার বছর আগে হলেও বেশ কিছু সমস্যার কারণে আজ সম্পূর্ণ হয়নি। পাশপাশি করোনা মহামারী শুরু হওয়াতে আরও পিছিয়ে গিয়েছে পুরো বিষয়টি। তিনি আশা করছেন এই বছরের শেষের দিকে তিনি ফিরে পাবেন নিজের কৃত্রিম যৌনাঙ্গ।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.