ভোপাল: গাছে বাঁধা তিন যুবক৷ ওই অবস্থায় লাঠি সোটা নিয়ে বেধড়ক মারা হচ্ছে তাদের৷ কারণ ওই তিনজনের একজন বিবাহিতা মহিলার সঙ্গে পালিয়ে বিয়ে করে নেয়৷ সেই কাজের মাশুল গুনল সকলে৷

আঁতকে ওঠার মতো ঘটনাটি মধ্যপ্রদেশের রাজধানী ভোপাল থেকে ২৩০ কিমি দুরে ধারে৷ এই ঘটনায় পাঁচজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ এই খবর জানিয়েছে পুলিশ৷ ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ জানতে পারে, মুকেশ নামে এক ব্যক্তির স্ত্রীর সঙ্গে পালিয়ে যায় এক যুবক৷ পরে ওই মহিলাকে বিয়ে করে নেয়৷ দু’জন পালিয়ে যাওয়ার পর মুকেশ একদিন স্ত্রীর নতুন স্বামীকে ডেকে পাঠায়৷ বার্তা পাঠায়, বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে চায়৷

মুকেশের প্রস্তাবে সাড়া দেয় সে৷ দুই আত্মীয়কে নিয়ে স্ত্রীর প্রথম স্বামীর সঙ্গে দেখা করতে যায়৷ তখনও বোঝেনি তাঁর আসল মতলব৷ ওদিকে দলবল নিয়ে হাজির হয় মুকেশও৷ বলপূর্বক তিনজনকে সঙ্গে নিয়ে গাছে বেঁধে দেয়৷ তারপরই শুরু হয় অত্যাচার৷ লাঠি নিয়ে এসে তাদের মারা হয়৷ এছাড়া যথেচ্ছ চড়, কিল ও ঘুসি তো ছিলই৷

তিনজনকে মারা হচ্ছে দেখে আশেপাশে লোক জড়ো হয়ে যায়৷ কিন্তু তাদের কাউকেই বাঁচাতে এগিয়ে আসতে দেখা যায়নি৷ উল্টে অনেকে ঘটনার ভিডিও করে৷ পরে সেটি ভাইরাল হয়ে যায়৷ সেই ফুটেজ দেখেই অপরাধীদের কয়েকজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পকসো সহ নানা ধারায় মামলা দায়ের করা হয়৷ কেননা ওই তিন জনের মধ্যে এক নাবালকও ছিল৷ জেলার পুলিশ সুপার সঞ্জীব মূলে জানান, পাঁচ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ বাকিরাও দ্রুত ধরা পড়বে৷