সিডনি : সৈকতে ছুটি কাটাতে যাওয়ায় কাল হল ! হাঙরের আক্রমণে প্রাণ গেল প্রৌঢ়ের। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে, উত্তর-পূর্ব অস্ট্রেলিয়ার জনপ্রিয় ক্যাবেলা বিচে।

রবিবার একটি আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গিয়েছে, অস্ট্রেলিয়ার উত্তর-পশ্চিম উপকূলের এই ক্যাবেলা সমুদ্র সৈকত দেশ-বিদেশের পর্যটকদের কাছে দারুণ পছন্দের একটি জায়গা। এদিন সেখানে ঘুরতে গিয়ে হাঙরের আক্রমণের মুখে পড়েন মধ্যবয়সী এক ব্যক্তি। বিষয়টি দেখতে পেয়ে সৈকতে বেড়াতে আসা অন্যান্য পর্যটকেরা তাঁকে উদ্ধার করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করলেও অতিরিক্ত আঘাতের কারণে শেষপর্যন্ত মারা যান তিনি।

এই বিষয়ে ওয়েস্টার্ন অস্ট্রেলিয়ান পুলিশের তরফে একটি বিবৃতি দিয়ে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। মর্মান্তিক এই ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় পুলিশ-প্রশাসন।

জানা গিয়েছে, ২২ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত অস্ট্রেলিয়ার ব্রোম শহরের এই সাদা বালির সৈকতে হাঙরের আক্রমণের ঘটনা খুবই বিরল। তবে চলতি বছরে এই নিয়ে আটবার হাঙরের আক্রমণের ঘটনা ঘটেছে এই সৈকতে।

যদিও অস্ট্রেলিয়ার পুলিশ প্রশাসনের তরফে জানা গিয়েছে, জনপ্রিয় এই সৈকতটি বছরে এক-দুবার বন্ধ করা হয়। কেননা অনেক সময় লবনাক্ত জলের কুমির গুলি সৈকতের কাছাকাছি চলে আসায় পর্যটকদের সুরক্ষার কথা ভেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।