ম্যাঞ্চেস্টার: নরউইচ সিটির বিরুদ্ধে প্রিমিয়র লিগের শেষ ম্যাচে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের হারে অবাক হয়েছিলেন ফুটবল অনুরাগীদের অনেকেই। কিন্তু সেই ঘটনা যে নেহাতই ফ্লুক বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগে তা প্রমাণ করে দিলেন পেপ গুয়ার্দিওলার ছেলেরা। হার ভুলে অ্যাওয়ে ম্যাচে ইউক্রেনের শাখতার দোনেৎস্ককে ৩-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অভিযান শুরু করল প্রিমিয়র লিগ সেরারা।

ঘরের মাঠে ইউক্রেনের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবের প্রতি-আক্রমণ নিয়ে সতর্ক করেছিলেন পেপ গুয়ার্দিওলা। জন স্টোনস, এমেরিক ল্যাপোর্টেহীন স্কাই ব্লুজ রক্ষণে এদিন তাই ওটামেন্ডির সঙ্গে ফার্নান্দিনহোকে জুড়ে দেন ম্যান সিটি বস। স্বভাবতই ম্যাচে ক্লিন শিট নিঃসন্দেহে আশ্বস্ত করবে তাঁকে। ২৪ মিনিটে মরশুমের প্রথম গোল করে প্রিমিয়র লিগ সেরাদের এদিন প্রথম স্বস্তি এনে দেন রিয়াদ মাহরেজ। বক্সের সামান্য বাইরে থেকে গুন্দোয়ানের নেওয়া বাঁ-পায়ের দুরন্ত শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হলে ফিরতি বল জালে রাখেন সুযোগ-সন্ধানী আলজিরিয়ান স্ট্রাইকার।

৩৮ মিনিটে অ্যাসিস্টরের ভুমিকায় অবতীর্ণ হন মাহরেজ। তাঁর পাস থেকে বল তিনকাঠিতে রেখে সিটির হয়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন গুন্দোয়ান। মাঝমাঠ থেকে দুরন্ত অপারেট করে সারা ম্যাচে দলের স্ট্রাইকারদের এদিন ভরসা জোগালেন এই জার্মান ফুটবলার। ২-০ গোলে এগিয়ে থেকেই অ্যাওয়ে ম্যাচে এদিন বিরতিতে যায় সিটি।

ঘরোয়া লিগে দুরন্ত ফর্মে থাকা জুনিয়র মোরায়েসের উপর ভরসা থাকলেও ঘরের মাঠে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে লুইস কাস্ত্রোর দলকে ভরসা জোগাতে ব্যর্থ ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার। দুই অর্ধে দু’টি সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে ব্যর্থ তিনি। তবে মোরায়েস ব্যর্থ হলেও ৭৪ মিনিটে দলের তৃতীয় গোল এনে দিতে ভুল করেননি সিটির ব্রাজিলিয়ান স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস। কেভিন দি ব্রুয়েনার ফাইনাল পাস থেকে স্কোরলাইন ৩-০ করেন তিনি। রহিম স্টার্লিং’য়ের কাছে ব্যবধান বাড়িয়ে নেওয়ার সুযোগ আসলেও ইংরেজ স্ট্রাইকারের শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

সে যাইহোক অ্যাওয়ে ম্যাচে তিন গোলে জয়, একইসঙ্গে নয়া ডিফেন্স কম্বিনেশন গোল হজম থেকে বিরত থাকায় তিন পয়েন্টের সাথে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম ম্যাচে নিশ্চিতভাবে পেপের প্রাপ্তি অনেকটা স্বস্তি।