ম্যাঞ্চেস্টার: উড়তে থাকা লিভারপুলকে মাটিতে নামাল ম্যাঞ্চেস্টার সিটি। বৃহস্পতিবার ইয়ুর্গেন ক্লপের দলকে প্রথম হারের স্বাদ দিল পেপ গুয়ার্দিওলার ছেলেরা। থেমে গেল দ্য রেডসের টানা ২০ ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড৷

ঘরের মাঠে লিভারপুলকে ২-১ গোলে হারিয়ে শীর্ষে থাকা ‘দ্য রেডস’-এর সঙ্গে ব্যবধান কমিয়ে আনল সিটি৷ দু’দলের পয়েন্টের ব্যবধান মাত্র ৪। টানা ২০ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর প্রথম হারের স্বাদ পাওয়া লিভারপুল যদিও এখনও শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে৷ তাদের পয়েন্ট ৫৪। দ্বিতীয় স্থানে থাকা গতবারের চ্যাম্পিয়ন সিটির পয়েন্ট ৫০। ৪৮ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে টটেনহ্যাম৷

ইতিহাদ স্টেডিয়ামে প্রথমার্ধে তেকাঠিতে দু’টি করে শট রেখেছিল দুই দলই৷ ১৯ মিনিটে ভাগ্যের ফেরে এগিয়ে যেতে পারেনি লিভারপুল। সেনেগালের ফরোয়ার্ড সাদিও মানের শট পোস্টে লাগার পর ডিফেন্ডার বিপদমুক্ত করতে গেলে বল গোলরক্ষক এদেরসনের হাতে লেগে জালের দিকে ছুটছিল। শেষ মুহূর্তে তা ফিরিয়ে সিটির ত্রাতা হয়ে ওঠেন স্টোনস।

ম্যাচের ৪০ মিনিটে অবশ্য সুযোগ কাজে লাগিয়ে এগিয়ে যায় সিটি। বাঁ-দিক দিয়ে আক্রমণে ওঠা সিলভা বাইলাইনের কাছাকাছি থেকে কাট-ব্যাক করলে আগুয়েরো ডান পায়ে বল নিয়ে বাঁ-পায়ে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন। চলতি লিগে আর্জেন্তাইন ফরোয়ার্ডের এটি ১০ নম্বর গোল। ৫২ মিনিটে রাহিম স্টার্লিং অ্যান্ড্রু রবার্টসনকে ডি-বক্সের মধ্যে ফেলে দিলে পেনাল্টির আবেদন করেছিল লিভারপুল কিন্তু সেই আবেদনে সাড়া দেননি রেফারি।

৬৩ মিনিটে ফিরমিনোর শট এদেরসন আটকানোর পরের মিনিটেই সমতা ফেরে লিভারপুল৷ স্বস্তি ফেরে দ্য রেডস সমর্থকদের মুখে। আরনল্ডের লম্বা করে বাড়ানো বল রবার্টসনের থেকে পেয়ে যায় ফিরমিনো। দানিলো লাফিয়ে উঠেও বল বিপদমুক্ত করতে ব্যর্থ হলে সহজ সুযোগ কাজে লাগান ব্রাজিলের এই ফরোয়ার্ড। তবে লিভারপুলের স্বস্তি উড়ে যায় ৭২ মিনিটে। স্টার্লিংয়ের বাড়ানো বল ধরে সানের বাঁ-পায়ের জোরালো শট গোল পোস্টের ভেতরের কানায় লেগে ঠিকানা খুঁজে পায়।

৮২ মিনিটে স্টার্লিংয়ের বাড়ানো বলে আগুয়েরোর নেওয়া শট শেষ মুহূর্তে ফিরিয়ে ব্যবধান বাড়াতে দেননি লিভারপুল গোলরক্ষক আলিসন। দুই মিনিট পর সালাহর শট ফিরিয়ে সিটিকে জয়ের পথে রাখেন সিটির ব্রাজিলিয়ান গোলরক্ষক এদেরসন।