দোদমা: ভগবান যখন দেন, তখন মনে হয় জানালা দিয়েও দেন। একথা একেবারে মিলে যাচ্ছে সাইনিনিও লাইজারের সঙ্গে। মাটি খোঁড়ার সময় সে পেয়েছে একটি অনন্য মূল্যবান পাথর। যার নাম তাঞ্জানাইট স্টোন। সেটি বিক্রি করে তাঁর উপার্জন হয়েছে ১৪.৭ কোটি টাকা।

উল্লেখযোগ্য ব্যাপার হল, এর মাত্র কিছুদিন আগেই ওই যুবক পেয়েছিলেন এম্ন আরও একটি পাথর। সেটি বিক্রি করে সে পেয়েছিল সাড়ে ২৩ কোটি টাকা। এই জন্যই বোধহয় বলে, ভগবান যখন দেন, জানালা দিয়েও দেন। ডেইলি মেইলের রিপোর্ট মোতাবেক, দু’বার কোটি টাকার পাথর পাওয়া সাইনিনিও লাইজার তানজানিয়ার বাসিন্দা। সেখানকার একটি খনিতে কাজ করার সময় সে এই পাথরগুলি পেয়েছে।

তানজানিয়া একটি পূর্ব আফ্রিকার দেশ যা কেনিয়া এবং জিম্বাবুয়ের কাছে অবস্থিত। সাইনিনিওর বয়স ৫২ বছর, সে মোট ৩০ সন্তানের বাবা।

শেষবার সাইনিনিও যে পাথরটি পেয়েছে, তার ওজন ৬.৩ কেজি। সোমবার একটি বিশেষ অনুষ্ঠানে তিনি এই পাথরটি ১৪.৭ কোটি টাকায় বিক্রি করে। শুধুমাত্র এই পাথরের বিক্রি করা দেখতে কয়েকশো লোক হাজির হয়েছিল।

সাইনিনিওর চার স্ত্রী এবং মোট ৩০ জন সন্তান রয়েছে। পাথর বিক্রি করে বিপুল পরিমাণে অর্থ উপার্জনের পরে তিনি জানান, তিনি নিজের কিছু অর্থ দিয়ে একটি স্কুল এবং শপিংমল তৈরি করবেন। তবে পাশাপাশি তিনি বলেন, এত টাকা উপার্জন করার পরেও তাদের জীবনযাত্রার পরিবর্তন হবে না এবং তারা আগের মতোই ২০০০ টি গরুকে দেখাশোনা করবে।

তানজানিয়ার খনি মন্ত্রক সরকারি ভাবে নিশ্চিত করেছে, সাইনিনিওই ওই মূল্যবান পাথর পেয়েছিল।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।