মাদ্রিদ: স্পেনের এক সরকারি কর্মী খোয়ালেন তাঁর চাকরি৷ কারণ? এক দশক ধরে তিনি লোকের চোখে ধুলো দিয়ে গিয়েছেন কাজই করেননি৷ ন’বছরের জন্য তাঁকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে৷

চার্লস রেসিও, ভ্যালেন্সিয়ার প্রাদেশিক সরকারের আর্কাইভ ডিরেক্টর তিনি৷ রোজ সকালে ৭:৩০ এ অফিস ঢুকতেন৷ এবং তারপরই বেরিয়ে যেতেন অফিস থেকে৷ আবার ফিরতেন বিকেল ৮টে বাজলে৷ তারপর আবার উপস্থিতি দিয়ে বেরিয়ে যেতেন৷ এই ভাবেই চলে টানা দশ বছর৷ এতদিন ধরে চুপ করে থাকলেও অবশেষে তাঁর সহকর্মীরা বিষয়টি নিয়ে সোচ্চার হন৷ গত বছর তারা এ বিষয়ে গলা চড়ানোর পরই চার্লসকে তাঁর পঞ্চাশ হাজার ইউরোর(৪৪ হাজার পাউন্ড) চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়৷

তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আসার পর চার্লস লা সেক্সটা নামের একটি স্প্যানিশ টেলিভিশন চ্যানেলকে জানান “আমি কুকুরের মত কাজ করে গিয়েছি৷” তিনি আরও বলেন “আমি কুকুরের মত কাজ করে গিয়েছি যাতে আমার কাজের পুরস্কার অন্যে নিতে পারে৷” ওই সরকারি কর্মী এও জানান তিনি তাঁর কাজ অফিসের বাইরে করতেন৷ তবে তদন্ত শুরু হলে দেখা যায় তিনি যে বাইরে কাজ করতেন তার কোনও প্রমাণ নেই৷ তিনি নিজেও তার কোনও প্রমাণ দিতে পারেননি৷ তাই তাঁর এই অজুহাতকে আদালত থেকে খারিজ করে দেওয়া হয়৷

এর পাশাপাশি চার্লস বলেন তিনি সত্যিই বাইরেই কাজ করেছেন কিন্তু তাঁর সহকর্মীরা তাঁকে হয়রান করা চেষ্টা করছেন৷ তবে এত সবের পরে রেসিওর বিরুদ্ধে ওঠা অপরাধীর তকমা ও চার্জ থেকে তাঁকে বরখাস্ত করা হয়৷ কারণ তিনি দশ বছর কাজ করেননি৷ যেটাকে অপরাধ সংগঠন করা হিসেবে ধরা যায়না৷

যদিও আদালত তাকে ইচ্ছাকৃত ভাবে কাজে না যাওয়ার অথচ অফিসের সময়ে কর্মস্থলে থাকছেন দেখিয়ে দীর্ঘদিন বেতন নেওয়ার অপরাধে অপরাধী মনে করে৷ তবে চার্লসকে তাঁর বেতনের টাকা ফেরত দিতে হবে কিনা সে বিষয়ে আদালতের তরফে কিছু খোলসা করা হয়নি৷

আদালত স্থানীয় ভ্যালেন্সিয়া সরকারেরও সমালোচনা করে তাদের কার্যকলাপের জন্য৷ ইউরোপা প্রেস এজেন্সির খবরে প্রকাশ পেয়েছে আদালতের তরফে জানান হয় “স্থানীয় সরকারের গা ছাড়া ভাবের জন্য সরকারি কর্মী এই ধরণের ঘটনা ঘটাতে পেরেছে এবং সেটাই তার কাছে লাভজনক হয়েছে৷” এই বছরের শুরুতে, ভ্যালেন্সিয়া কর্তৃপক্ষের তরফে একটি শিল্প প্রদর্শনীর আয়োজন করে যার শিরোনামে লেখা হয়, “ভ্যালেন্সিয়া জন্য প্রেম: একটি মানুষের কাজ যিনি কোনও দিন কাজই করেননি৷” এটি ছিল মিস্টার রেসিও প্রদর্শনী৷ তাঁকে আর্টিস্ট হিসেবে উপস্থাপন করা হয়৷ পরে এটি বাতিল করতে বাধ্য হয় সরকার৷