স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ:  আমফানের ত্রাণ বিলি থেকে শুরু করে, বিভিন্ন প্রকল্পে কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে তৃণমূল নেতাদের কাটমানির নেওয়ার অভিযোগ। আর তা নিয়ে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। এবার মালদহে পঞ্চায়েতের কাজে কাটমানি ও কমিশন নেওয়ার অভিযোগ উঠল এক তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে।

অভিযুক্ত কালিয়াচক ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তথা তৃণমূল নেতা। এই বিষয়ে অভিযুক্ত ওই নেতা টিংকুর রহমান বিশ্বাস‌কে শোকজ করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। দলের পক্ষ থেকে এই বিষয়ে তাঁকে জবাবদিহি করতে বলা হয়েছে।

সম্প্রতি হাওড়া সহ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বেশকিছু তৃণমূল নেতা ও জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এরপরই অভিযুক্ত নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেয় তৃণমূল কংগ্রেস।

জানা গিয়েছে, এবার অভিযোগ উঠেছে কালিয়াচক ২ নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি টিংকুর রহমান বিশ্বাসের বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে রাজ্য নেতৃত্বের কাছে বেশ কিছু মানুষ অভিযোগ করেন যে সরকারি প্রকল্পে কাজ পাইয়ে দেওয়ার নাম করে সে মোটা টাকা কমিশন খেয়েছে ও বিভিন্ন জায়গা থেকে কাটমানি তুলেছে। এরপরই তাকে মালদহ জেলা নেতৃত্ব শোকজ করে।

এই বিষয়ে তৃণমূলের জেলা কমিটির অন্যতম নেতা তথা ইংরেজবাজার পুরসভার প্রাক্তন চেয়ারম্যান নরেন্দ্রনাথ তিওয়ারি বলেন, “ওই নেতার বিরুদ্ধে অনেকদিন ধরে নানান রকম অভিযোগ উঠেছে। আর সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।” যদিও গোটা ঘটনা নিয়ে অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা সংবাদমাধ্যমকে এড়িয়ে যান।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।