স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: করোনা পরিস্থিতিতেও কবিতা লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কবিতার নাম ‘ফ্যাকাশে’। ওই কবিতায় ‘নিউ নর্মাল’ পৃথিবীর কথা তুলে ধরেছেন তিনি। নোভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে সারা বিশ্ব কতটা আতঙ্কিত, তারই প্রতিফলন মমতার এই কবিতায়।

কোভিড যুদ্ধে সামিল হয়ে পৃথিবী যে কতটা বদলে গিয়েছে তা ছত্রে ছত্রে তুলে ধরেছেন মুখ্যমন্ত্রী। মাস্কে ঢাকা মুখগুলিকে সূর্যগ্রহণের সঙ্গে তুলনা করেছেন। করোনা পরিস্থিতিতে ভ্যাকসিনের জন্য অপেক্ষা করা ছাড়া যে আর কোনও উপায় নেই তাও কবিতায় উল্লেখ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

জীবনের রক্ষক হয়ে কেউ তো আসবে! সেই অপেক্ষাতেই দিন কাটছে সাধারণের।

তাঁর লেখায়, “অপেক্ষাই অপেক্ষার অপেক্ষায়।” মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন- আকাশ যেন কেমন ফ্যাকাশে /মেঘগুলো খাসা-ঠাসা/ বস্তাপচা ময়লার ধোঁয়ায়/পৃথিবীটা গেল বদলে/ এসে গেল ‘কোভিড যুদ্ধ’/ মানবিক পৃথিবীতে / কালো আতঙ্কের হতাশা/ নিঃশ্বাসে শুধু অবিশ্বাস / বোবা- কালা মুখদর্শন /অর্ধমুখমণ্ডলীকে ঢেকেছে সূর্যগ্রহণে/ পূর্ণগ্রাসে চন্দ্রাভিযান ক্লান্ত/ জনজীবনের বলিরেখা/দিনের আলোয় আঁধারের দিবানিদ্রা/মিডিয়াতে ভয়ঙ্কর আতঙ্কের আগ্নেয়গিরি/ ধানের তুষকে জ্বালিয়ে দিয়েছে/ তুষারে ঢেকেছে শয্যা/পরিবেশ দূষণে শারীরিক দূষণের কালিমা/শব্দদূষণের চিতাভস্ম/কবে এর সমাপ্তি?/ জানা নেই/কবে আসবে জীবন রক্ষক?/ বোঝা যাচ্ছে না/ অপেক্ষাই অপেক্ষার অপেক্ষায়।

বিভিন্ন বিষয় কলম, তুলিতে জীবন্ত করে তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে তিনি এর আগেও কবিতা লিখেছিলেন।করোনা নিয়ে তার লেখা প্রথম কবিতার নাম ছিল ‘করোনা’। গত ১৯ মার্চ ফেসবুকে কবিতাটি পোস্ট করেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সেখানে সরকারি আমলার দায়িত্বজ্ঞানহীনতা নিয়েও নিজের মনের কথা লিখেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। ইতিমধ্যেই তাঁর কবিতা ‘ফ্যাকাশে’ রীতিমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

অযোধ্যার রাম মন্দির নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়দানের পরও কলম ধরেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। কবিতার নাম ছিল ‘না বলা’। এছাড়া সিএএ ইস্যুতেও কলমের মাধ্যমেই গর্জে উঠেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এক নজরে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের লেখা কবিতা-

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও