কলকাতাঃ করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে জরুরিকালীন সরকারি সেবা চালু থাকবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এমনকি লক ডাউনের সময়ে যা বলা হয়েছে তা মেনে চলতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। কেন্দ্রের নির্দেশ মেনে রাজ্যে রাজ্যে লকডাউন বহাল রাখার জন্য পথে নেমেছে পুলিশ। তবে রাজ্যের একাধিক এলাকায় অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের গাড়ি আটকানোর অভিযোগ উঠেছে। শাক-সবজি নিয়েও বসতে দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ। এমনকি পুলিশ-প্রশাসন একাংশ তা অনেক ক্ষেত্রেই আটকাচ্ছে বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এই নিয়ে রাজ্যবাসীর একাংশের মনে ক্রমেই বাড়ছে ক্ষোভ। বিষয়টি নজরে আসতে তড়িঘড়ি ব্যবস্থা নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়েছেন, কোনও ক্ষেত্রেই অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহে বাধা দেওয়া যাবে না। ডেলিভারি বয়দের অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহের ক্ষেত্রে বাধা দেওয়া যাবে না।

পুলিশ কর্তাদের এই ব্যাপারটি খেয়াল রাখতে স্পষ্ট নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। যদি কোন ক্ষেত্রে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য সরবরাহে বাধা দেওয়ার অভিযোগ ওঠে, তবে সংশ্লিষ্ট সরকারি অফিসারদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এরই পাশাপাশি লকডাউন চলাকালীন কোন প্রান্তে কোন ব্যক্তি যদি অভুক্ত থাকেন, তবে সঙ্গে সঙ্গে তা প্রশাসনের গোচরে আনার জন্য রাজ্যবাসীকে আবেদন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট এলাকার বিডিও, এসডিওদের যথোপযুক্ত ভূমিকা পালন করতে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

অন্যদিকে, করোনা মোকাবিলায় এবার সাধারণ নাগরিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানালেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কেন্দ্র থেকে কোনও সাহায্যে এখনও আসেনি৷ সুতরাং করোনা মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়ানোর সমাজের উচ্চবিত্তদের এগিয়ে আসতে বলেন মুখ্যমন্ত্রী৷

পড়ুন আরও- Breaking: করোনা মোকাবিলায় সাহায্যের আহ্বান মমতা’র

বুধবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘জানুয়ারির শেষ দিকেই এই করোনাভাইরাস দেখা গেলও কেন্দ্র কোনও সারকুলার জারি করেনি৷এটা আমাদের হঠাৎ করে সব ব্যবস্থা করতে হচ্ছে৷ কেন্দ্র থেকে আমরা এখনও পর্যন্ত কোনও সাহায্য পায়নি৷ তবে করোনা মোকাবিলায় আমরা ইতিমধ্যে ২০০ কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করেছি৷ কিন্ত এটা যথেষ্ট নয়৷ সাধারণ নাগরিকদের কাছে আমার আবেদন এই বিপর্যয়ের সমনেে আপনারও এগিয়ে এসে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিন৷’