কলকাতাঃ  সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের পর থেকে ভাটপাড়ায় হিংসা অব্যাহত৷ একাধিকবার বোমাবাজির ঘটনায় বার বার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে ভাটপাড়া৷ ধুন্ধুমার কাণ্ড ফের সেই ভাটপাড়াতেই৷ থানা উদ্বোধনের দিন সকাল থেকে বোমা, গুলিতে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়েছে ভাটপাড়া৷ দুজনের মৃত্যুর খবরও পাওয়া গিয়েছে৷ জারি করা হয়েছে ১৪৪ ধারা। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে নবান্নে জরুরি বৈঠকে বসেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

জানা গিয়েছে, এই বৈঠকে রং না দেখে এই ঘটনায় দুষ্কৃতীদের গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। যাকে প্রয়োজন তাঁকেই গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন। শুধু তাই নয়, আগামী তিনদিনের মধ্যে স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ভাটপাড়া ফিরিয়ে আনার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এরপরেই ভাটপাড়া ইস্যুতে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখোমুখি হন স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ভাটপাড়া ইস্যুতে কড়া পদক্ষেপ নিচ্ছে রাজ্য প্রশাসন। সেখানে উচ্চপদস্থ পুলিশ আধিকারিকদের পাঠানো হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে। তবে এই অশান্তির পিছনে বহিরাগত রয়েছে বলে দাবি করেন স্বরাষ্ট্রসচিব। তাঁর দাবি, ভাটপাড়া ও জগদ্দলে বেশকিছু পকেটে বহিরাগতরা ঘাঁটি গেড়েছে। স্থানীয় সমাজবিরোধীদের সঙ্গে হাত মিলিয়ে এলাকায় অশান্তি ছড়াচ্ছে তারা। ইতিমধ্যে সেখানে ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রসচিব।

আজ বৃহস্পতিবার নতুন থানা উদ্বোধনের আগে নতুন করে অশান্তি ছড়িয়ে পড়ে ভাটপাড়ায়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে ভাটপড়া। থানার একেবারে ২০০ গজের মধ্যে চলে বোমাবাজি। শূন্যে ১৫ থেকে ২০ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে পুলিশ। গুলিবিদ্ধ হয়ে এখনও পর্যন্ত ২ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। গুলিবিদ্ধ ৫ জন। তাঁদের মধ্যে বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গিয়েছে।