কলকাতা: তৃণমূলের ডেরেক ও’ব্রায়েন, দোলা সেন-সহ ৮ বিরোধী সাংসদকে বরখাস্তের ঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। টুইটে কেন্দ্রীয় সরকারকে তুলোধনা করেছেন তৃণমূলনেত্রী। স্বৈরাচারী মনোভাবের পরিয় দিয়েছে কেন্দ্র, এমনই অভিযোগ তৃণমূল সুপ্রিমোর। এই ঘটনাকে অনভিপ্রেত বলেও মন্তব্য করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বিরোধীদের তুমুল হইচইয়ের মধ্যেই রবিবার রাজ্যসভায় পাস হয়ে গিয়েছে কৃষি বিল। কৃষি বিল নিয়ে তুমুল আপত্তি ছিল বিরোধীদের। রবিবার অধিবেশন কক্ষে বিলের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকেন বিরোধী তৃণমূল থেকে শুরু করে অন্য দলের সাংসদরা।

তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন রুল বুক ছিঁড়েছেন ও ডেপুটি চেয়াম্যানের মাইক ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ। ‘শাস্তি’ হিসেবে তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন ও দোলা সেন-সহ মোট ৮ বিরোধী সাংসদকে বরখাস্ত করেছেন রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু। এই ঘটনার কড়া নিন্দায় তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সোমবার টুইটে কেন্দ্রকে নিশানা করে তৃণমূলনেত্রী লিখেছেন, ‘‘ কেন্দ্রের কাছে মাথা নত করব না। এটা খুবই অনভিপ্রেত একটি ঘটনা। স্বৈরাচারীতা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। প্রয়োজনে পথে নেমে লড়াই চালাব।’’ লোকসভার পর রবিবার রাজ্যসভাতেও পাস হয়ে গিয়েছে কৃষি বিল।

দিন কয়েক ধরেই কৃষি বিল নিয়ে পঞ্জাব, হরিয়ানা-সহ দেশের একাধিক রাজ্যে কৃষকরা প্রতিবাদ শুরু করেছেন। রাজ্যসভায় ধ্বনিভোটের মাধ্যমে পাস হয়েছে কৃষি বিল। শুরু থেকেই এই বিল নিয়ে তীব্র আপত্তি ছিল বিরোধী একাধিক রাজনৈতিক দলগুলির। সেই সব আপত্তি অগ্রাহ্য করেই সংসদের দুই কক্ষেই কৃষি বিল পাস করিয়ে নিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার।

রবিবার রাজ্যসভায় কৃষি বিল পেশের সময় তুমুল হট্টগোল শুরু করে দেন বিরোধী সাংসদরা। কংগ্রেস সাংসদ রিপুন বোরা, তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন, আপ সাংসদ সঞ্জয় সিং-সহ বেশ কয়েকজন সাংসদ পোডিয়ামের মাইক কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ ওঠে। বিক্ষোভরত ওই সাংসদরা রুল বুক, কাগজপত্রও ছিঁড়ে দেন বলে অভিযোগ। যদিও পরে সেই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন।

হট্টগোলের জেরে ১০ মিনিট অধিবেশন মুলতুবি করে দেওয়া হয়। পরে অধিবেশন শুরু হলে ধ্বনি ভোটে পাস হয়ে যায় নয়া কৃষি বিল। এরপর সোমবার অধিবেশন শুরু হতেই ডেরেক ও’ব্রায়েন, দোলা সেন-সহ রাজ্যসভার ৮ সাংসদকে সাসপেন্ড করে দেন চেয়ারম্যান বেঙ্কাইয়া নাইডু।

রাজ্যসভার চেয়ারম্যান জানান, সাংসদের এমন ব্যবহার অনভিপ্রেত। তাঁদের আত্মসমীক্ষা করা উচিত। ওই ৮ সাংসদকে এক সপ্তাহের জন্য সাসপেন্ড করা হয়েছে বলে জানান বেঙ্কাইয়া নাইডু।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।