স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আগামী মাসেই কলকাতা কর্পোরেশন সহ রাজ্যের বিভিন্ন পুরসভায় ভোটের সম্ভাবনা। তার আগে জনসংযোগ জোরদার করার জন্য নেতাকর্মীদের নির্দেশ দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নিজের এলাকায় নেতাকর্মীদের রোজ দুটো করে চায়ের দোকানে গিয়ে বসার টাস্ক দিয়েছেন তিনি।

দিদিকে বলো’র পর তৃণমূলের নতুন জনসংযোগ কর্মসূচি হল ‘বাংলার গর্ব মমতা।’ সোমবার তার আনুষ্ঠানিক সূচনা করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই। এই উপলক্ষ্যে নেতাজি ইন্ডোরে আয়োজিত দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘‘আরও নম্র হতে হবে। বিনয়ী হতে হবে। মানুষের কাছে যেতে হবে। নিজেদের অহঙ্কার থাকলে তা ভেঙে গুঁড়িয়ে গরিব মানুষকে কাছে টেনে নিতে হবে।’’

এদিন মমতা দলের উদ্দেশ্য বলেন, ‘‘কোনও লবি করার দরকার নেই। এখানে একটাই লবি জোড়াফুল। কাজ করলে টিকিট একশো শতাংশ নিশ্চিত।’’

দলীয় শৃঙ্খলা না মানায় মালদহ জেলার তৃণমূল নেতৃত্বকে সতর্ক করে মমতা বলেন, ‘‘প্রয়োজন হলে নতুন নেতৃত্ব তৈরি করে নেব।’’

নেতাজি ইন্ডোরে বিজেপির সঙ্গে নিজের দলের তুলনা টেনে তৃণমূল সুপ্রিম বলেন, ‘‘ঔদ্ধত্য যেন না থাকে। কীসের ঔদ্ধত্য? আজ আছি, কাল নেই।’’ তারপরই বিজেপির নাম না করে তিনি বলেন, ‘‘আমরা কেউ যেন কেন্দ্রের সকারের নেতাদের কাছ থেকে ঔদ্ধত্য, অহঙ্কার না শিখি।’’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।