স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আর রাজ্যের জন্য নয় এবার যেন জাতীয় নেত্রী তিনি ৷ সেই ঢঙেই বৃহস্পতিবার বিশ্ব বঙ্গ শিল্প সম্মেলনের মঞ্চে লগ্নির আহ্বান জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি অন্যান্য রাজ্যের জন্যও লগ্নি চাইতে দেখা গেল তাঁকে৷ তখন ওই মঞ্চে রয়েছে রিলায়্যান্স গোষ্ঠীর কর্ণধার মুকেশ অম্বানী, আদানি গোষ্ঠীর করণ আদানির পাশাপাশি সজ্জন জিন্দাল, সঞ্জীব গোয়েঙ্কা রাজন ভারতী মিত্তাল সঞ্জীব পুরীরা৷

এদিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর গলায় শোনা গিয়েছে, পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি শিল্পপতিরা গুজরাত, রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ-সহ সব রাজ্যে লগ্নি করুন। এদিন তিনি এ রাজ্যের পাশাপাশি ওই সব রাজ্যের সম্বৃদ্ধির মাধ্যমে গোটা দেশের সমৃদ্ধি চেয়েছেন৷

বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকারের আচরণের জন্য অনেক শিল্পপতি দেশে লগ্নি না করে বাইরে চলে গিয়েছেন বলে মনে করেন তিনি৷ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তাদের দেশে ফিরতে অনুরোধ করেছেন৷ আর সে কথা বলতে গিয়ে মন করিয়ে দিয়েছেন আর কিছুদিন বাদে ভোট এবং তারপরে সরকার বদলে যাবে৷ আর নতুন সরকারের নতুন নীতি হবে বলেই জানিয়েছেন তিনি৷ তাঁর বক্তৃতায় যেন বার্তা রয়েছে সরকার বদলের বিষয়ে তিনি একশো ভাগ নিশ্চিত এবং সেজন্যই নতুন শিল্পনীতির কথা বলছেন৷

এদিনও দিদি পরিসংখ্যা দিয়ে তুলে ধরেন নরেন্দ্র মোদীর ভারতের চেয়ে মমতার বাংলা কোথায় কোথায় এগিয়ে রয়েছেন৷ তাঁর আমলে রাজ্যের কৃষি ও শিল্পের বৃদ্ধি সর্বভারতীয় হারের তুলনায় যথাক্রমে ২৭৪% ও ১৯৪% বেশি। তিনি দাবি করেন, দেশে বছরে দু’কোটি মানুষ কাজ হারালেও, এ রাজ্যে বেকারত্ব কমেছে ৪০% হারে। এ রাজ্যের পরিকাঠামোয় বৃদ্ধি বাকি ভারতের গড়ের অন্তত চার গুণ। মোদীকে নিশানা করে তাঁকে বলতে দেখা যায় তিনি কথা কম কাজ বেশি’র নীতিতে বিশ্বাসী।