স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পর এবার দলে ভাইদের গুরুত্ব বাড়ালেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শুক্রবার দলের কোর কমিটির বৈঠকে দুই ভাই কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় ও গণেশ বন্দ্যোপাধ্যায়কে জয়হিন্দ বাহিনীর শীর্ষপদ দিলেন নেত্রী৷ বঙ্গ জননী বাহিনীর মাথায় রাখা হয়েছে বারাসতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারকে৷

বিজেপি ও রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের মোকাবিলায় বৃহস্পতিবার নতুন দু’টি বাহিনী গড়ার কথা ঘোষণা করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটিতে এক প্রতিবাদ মঞ্চে দাঁড়িয়ে মমতা বলেন, ‘বঙ্গ জননী বাহিনী’ ও ‘জয় হিন্দ বাহিনী’ গড়ে তোলা হবে।

আরএসএস ও বিজেপির মোকাবিলায় এই দুই বাহিনী কাজ করবে। রাজ্যের প্রতিটি ব্লকে থাকবে এই বাহিনী৷ এদিন কোর কমিটির বৈঠকে এই জয়হিন্দ বাহিনীর চেয়ারম্যান করেন ব্রাত্য বসুকে৷ভাইস চেয়ারম্যান করেন ইন্দ্রনীল সেনকে৷ বাহিনীর সভাপতি ও কনভেনর হিসেবে নিযুক্ত করেছেন কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় ও গনেশ বন্দ্যোপাধ্যায়কে৷

আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রীকে জয় শ্রীরাম ধ্বনি, বদলি জগদ্দলের ওসি

মুখ্যমন্ত্রীর ছোট ভাই বাবুন বন্দ্যোপাধ্যায় এবং দাদা অজিত বন্দ্যোপাধ্যায় অনেকদিন ধরেই ময়দানী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। বাবুন তৃণমূলের স্পোর্টস সেলেরও দায়িত্বে রয়েছেন। দাদা অজিত হকি অ্যাসোসিয়েশন, অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে যুক্ত। কার্তিক বন্দ্যোপাধ্যায় দক্ষিণ কলকাতায় সংগঠনের কাজ দেখভাল করতেন৷ কিন্তু ব্লক স্তরে কার্তিক-গনেশ কাজ করলেও কখনই সামনের সারিতে ছিলেন না। এবার তাঁদের সামনের সারিতে আনলেন মমতা৷

উল্লেখ্য, গত শনিবার ভোট পরবর্তী রিভিউ মিটিং-এ দলের সেকেন্ড ইন কম্যান্ড অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ক্ষমতা খর্ব করেছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো৷ তাঁকে বাঁকুড়া, পুরুলিয়ার জেলার পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়৷

কালীঘাট সূত্রের খবর, অভিষেকের সঙ্গে তাঁর এই দুই কাকার সম্পর্ক তেমন ভালো নয়৷ তাই অভিষেকের ডানা ছাঁটার পর তাঁর কাকাদের দলে দায়িত্ব বৃদ্ধি তৃণমূলের রাজনীতিতে যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা৷

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।