স্টাফ রিপোর্টার, নদিয়া : ক্ষমতা থাকলে তসলিমা নাসরিনকে কলকাতায় ডেকে পাঠান। পদ্মাবতী ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চ্যালেঞ্জ করলেন বিজেপি নেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নদিয়ার রূপপুরে দলের এক জনসভা থেকে তিনি এই কথা বলেন। একই সঙ্গে তাঁর দাবি, ওই সিনেমার পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালীর ছবি তৈরির উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা উচিত।

প্রসঙ্গত, পদ্মাবতী ইস্যুতে গত কয়েকমাস ধরে উত্তাল গোটা দেশ। ওই সিনেমায় ইতিহাসের বিকৃতি করা হয়েছে বলে সরব হয়েছেন অনেকেই। ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ শুরু হয়েছে। কেউ কেউ আবার পদ্মাবতীর সমর্থনে সুর চড়াচ্ছেন। সেই তালিকাতেই রয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। আর তাই এদিন নদিয়ার সভা থেকে সরাসরি মমতার বিরুদ্ধেই তোপ দেগেছেন বিজেপির রাজ্য কমিটির এই নেতা।

জয়ের বক্তব্য, ‘’পদ্মাবতী ছবিতে প্রেমের নামে ইতিহাস বিকৃত করা হচ্ছে।‘’ আর সেই কারণেই এই সিনেমা নিয়ে দেশজুড়ে প্রতিবাদ করা হচ্ছে। বিভিন্ন রাজ্যে এই সিনেমা ব্যান করে দেওয়া হচ্ছে বলে তিনি মনে করেন। এই প্রসঙ্গে তিনি টেনে এনেছেন পাঞ্জাবকেও। ইতিহাস বিকৃত হয়েছে বলেই সেখানকার কংগ্রেস সরকার পদ্মাবতী ব্যান করে দিয়েছে বলে তিনি এদিন দাবি করেন। তাঁর মতে, কোনও সম্প্রদায়কে কষ্ট দিয়ে ছবি তৈরি করা উচিত নয়। কেউই বিতর্ক চায় না। বাংলার মানুষও চায় না। তাই পদ্মাবতীকে সমর্থন করে অযথা বিতর্ক তৈরি করা উচিত নয় বলেই তিনি মনে করেন। এর পরই তসলিমা নাসরিনের প্রসঙ্গ টেনে আনেন।

রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, জয় আসলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তথা তৃণমূলের সংখ্যালঘু তোষণের কথা বলতে চেয়েছেন। সংখ্যালঘু ভোটব্যাংক অক্ষুণ্ণ রাখতে মমতা পদ্মাবতী সিনেমাকে সমর্থন করছে বলে বোঝাতে চেয়েছন জয়। আর তাই তিনি টেনে এনেছেন তসলিমা নাসরিনের প্রসঙ্গ।

যদিও এ নিয়ে কথা বলার আগেই জয় একদফা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে সংখ্যালঘু তোষণ নিয়ে তোপ দেগেছেন। টেনে এনেছেন বসিরহাট-বাদুড়িয়ার প্রসঙ্গ। আর এসবের জন্য বাঙালি হিন্দুরা তৃণমূলের থেকে সরে যাচ্ছেন আর সেটা বুঝতে পেরেই দুর্গা কার্নিভ্যাল করা হচ্ছে বলেই তিনি দাবি করেন। জয়ের দাবি, এভাবে সংখ্যাগুরু থেকে সংখ্যালঘু সকলেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। প্রসঙ্গত, এদিনও সিপিএম ও তৃণমূল ছেড়ে ২৫০ জন বিজেপিতে যোগদান করেন। তাঁদের হাতে পদ্ম-পতাকা তুলে দেন জয় নিজেই।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV