বারাকপুর: যেখানেই মতুয়া মহাসংঘের হরিসভা হবে, সেখানেই এনআরসি নিয়ে সরব হওয়ার পরামর্শ দিলেন মমতাবালা ঠাকুর৷ মমতাবালা ঠাকুর তৃণমূলের সাংসদ ঠিকই৷ কিন্তু তাঁর আরও বড় পরিচয় মতুয়া সংঘের প্রধান তিনি৷ রবিবার বিকেলে হাবড়ায় মতুয়া মহাসংঘের নতুন কার্যালয়ের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গিয়ে এনআরসি নিয়ে সরব হন বনগাঁর এই সাংসদ৷

সম্প্রতি তৃণমূলের প্রতিনিধিদল গিয়েছিল অসমে৷ প্রতিনিধিদলে ছিলেন সুখেন্দুশেখর রায়, মহুয়া মৈত্র, অর্পিতা ঘোষ, মমতাবালা ঠাকুর৷ কিন্তু শিলচর বিমানবন্দরে নামতেই তাঁদের হেনস্তা করা হয় বলে অভিযোগ ওঠে৷ এই নিয়ে তোলপাড় হয় রাজ্য রাজনীতি৷

আরও পড়ুন: জানেন কৌশিকী অমাবস্যায় মা তারা কী বললেন অনুব্রত মণ্ডলকে

এদিনের অনুষ্ঠানে সে প্রসঙ্গ তুলে মমতাবালা ঠাকুর বলেন, ‘‘কিছুদিন আগে অসমে দাঁড়িয়ে যে ঘটনা হল, আমার এটাই গর্ব যে আমার জাতির জন্য আমাকে মুখ্যমন্ত্রী সেখানে পাঠিয়েছিলেন৷ ওখানে আমি যদি জেলেও ঢুকতাম তাহলেও আরও বেশি গর্ব অনুভব করতাম৷ আমার সমাজ, জাতির জন্য কিছু করতে পেরেছি৷’’

এরপরই বনগাঁর এই তৃণমূল সাংসদ বলেন, ‘‘আমরা ওপার বাংলা থেকে এসেছি যারা তখনও ভারতেরই ছিলাম৷ এখনও ভারতেরই নাগরিক৷ জানি না কোন উদ্দেশে নতুন আইন ওরা আনতে চাইছে৷ যেখানেই হরিসভা হোক, যেখানেই আমাদের উৎসব হোক না কেন আমাদের কিন্তু এনআরসি নিয়ে কথা বলা উচিৎ৷’’

হাবড়ার পূর্ব কামারথুবা এলাকায় মতুয়া মহাসংঘের নতুন এই শাখা কার্যালয়ের উদ্বোধন হল রবিবার৷ প্রায় ৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নতুন এই কার্যালয়ে বসানো হয়েছে অত্যাধুনিক ১৮০০ ওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্প৷ কার্যালয়ে এদিন উন্মোচন করা হয় বি আর আম্বেদকরের মূর্তি৷ সঙ্গে দরিদ্র শিশুদের মধ্যে ইংরেজি শিক্ষার প্রচলনের জন্য খোলা হয় ইংরাজি কোচিং সেন্টার৷

আরও পড়ুন: breakingNews- একাধিক যাত্রী নিয়ে মাঝ আকাশ থেকে ভেঙে পড়ল বিমান