কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় আমফানে বিধ্বস্ত দক্ষিণ ২৪ পরগনা৷ শনিবার ওই জেলার ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তারপর কাকদ্বীপে প্রশাসনিক বৈঠক করবেন৷

শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কপ্টারে উত্তর ২৪ পরগনার বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ এরপরে বসিরহাটে বৈঠকও করেন তিনি৷

উত্তর ২৪ পরগনার পরিদর্শনে যাওয়ার আগে কলকাতা বিমানবন্দরে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান, শনিবার আমি দক্ষিণ ২৪ পরগনার অনেক জায়গায় যাব। পাথরপ্রতিমা, গোসাবা, বাসন্তী, নামখানা, কাকদ্বীপ ঘুরে দেখব। তারপর কাকদ্বীপে প্রশাসনিক বৈঠক করব।

স্থানীয় সূত্রের খবর,ঘূর্ণিঝড় আমফানের তাণ্ডবে একেবারে লণ্ডভণ্ড গঙ্গাসাগরের প্রান্তিক এলাকাগুলি৷ এছাড়া নদী ও সমুদ্রের বাঁধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছে সুন্দরবনের বহু এলাকা৷ বহু কাঁচাবাড়ি ধূলিস্যাৎ।

প্রসঙ্গত, শুক্রবার হেলিকপ্টারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়কে নিয়ে দুই ২৪ পরগনার বিপর্যস্ত এলাকা ঘুরে দেখেন মোদী। সঙ্গে ছিলেন আরও চার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী৷

তারপর বসির‌হাট কলেজে বৈঠক করেন। সেখানেই রাজ্যকে এক হাজার কোটি টাকা অর্থ সাহায্য ঘোষণার পাশাপাশি মোদী বলেন, “কোভিডের সঙ্গে লড়াই করতে গেলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। আবার আমফানের সঙ্গে লড়াই করতে গেলে সাধারণ মানুষকে নিরাপদ জায়গায় সরিয়ে নিয়ে যেতে হবে। এরকম কঠিন পরিস্থিতিতে মমতাজির নেতৃত্ব পশ্চিমবঙ্গ খুব ভালো লড়াই করছে। এই পরিস্থিতিতে আমরা সবাই ওঁদের সঙ্গে রয়েছি।”

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে ঘূর্ণঝড়ের দাপটে কমপক্ষে ৮০ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের পরিবারবর্গকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের তরফে আমি সমবেদনা জানাচ্ছি।”