নিউজ ডেস্ক, শ্রীরামপুর: অক্ষয় কুমারকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তাঁর জীবনের বেশ কিছু অজানা কথা শেয়ার করেছেন নরেন্দ্র মোদী। তবে মমতার সঙ্গে সম্পর্কের কথায় চমকে দিয়েছেন সবাইকে। নিয়ম করে বছরে কুর্তা, মিষ্টি এসব পাঠান মমতা। একদিকে যখন ভোটের বাজারে একে অপরকে আক্রমণ, পাল্টা আক্রমণ করে চলেছেন, তার মধ্যেই মোদীর এই একটা জবাব রাজনীতিতে নতুন চমক দিয়েছে।

বিরোধীরা সেই অস্ত্র ব্যবহার করতে ছাড়েননি। সিপিএম-কংগ্রেস মোদী মমতা আঁতাতের প্রশ্ন তুলেছেন। এরই মধ্যে পাল্টা জবাব দিলেন মমতাও।

মোদীর এই মন্তব্যের পর বুধবার শ্রীরামপুরে দলীয় সভায় ‘রসগোল্লা’ খাওয়ানো নিয়ে মুখ খোলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন শ্রীরামপুরের তৃণমূলপ্রার্থী কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে নিয়ে প্রচারে বিজেপি ও মোদীর বিরুদ্ধে একাধিক তোপ দাগেন। তিনি বলেন, উত্তরপ্রদেশ থেকে কেরল, তামিলনাড়ু, বিহার,অন্ধ্রপ্রদেশে হারতে চলেছে মোদীর শিবির। পাশাপাশি, তাঁর দাবি বাংলা থেকে মোদীর দল ‘রসগোল্লা’ পাবে, অর্থাৎ শূন্য পাবে। আর এই কথা প্রসঙ্গে মমতা বলেন, পুজো বা উৎসবে এলে বাংলা যেমন অতিথি আপ্যায়ন করেন তেমনই রসগোল্লা খাওয়ানো হবে বিজেপিকে।

মমতা বলেন, মোদীকে রসগোল্লা, চা সব খাওয়ানো হবে। শুধু ভোট একটাও দেওয়া হবে না।

সাম্প্রদায়িকতা ,এনআরসি, নিয়েও মোদীকে এদিন তোপ দাগেন মমতা। তিনি দাবি করেন, বিজেপি সরকার এনআরসির নামে বাঙালি হটাও অভিযান করছে। তাঁর দাবি, ‘মোদী আসলে ভোট পাখি, কু কু করে ডাকে..’। মমতা বলেন, আগামিদিনে ‘মোদীর মুখে লুকোপ্লাস্টার ‘ লাগাবে জনতা।

মোদীর জীবনের নানা পযার্য় নিয়ে আলোচনা করেন অক্ষয়ের সঙ্গে৷ কথার ফাঁকে মোদী জানান, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বছরে তাঁকে এক-দুটি কুর্তা পাঠান৷ বাংলাদেশ থেকে শেখ হাসিনা মিষ্টি পাঠান৷