বারাসত: অ্যাম্বুল্যান্স থামিয়ে সভা করায় এবার তৃণমূলনেত্রীর নিশানায় দিলীপ ঘোষ৷ নাম না করে বৃহস্পতিবার মধ্যমগ্রামের সভা থেকে সরব তৃণমূল সুপ্রিমো৷ নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার মধ্যমগ্রাম-বারাসত কাছারি ময়দান প্রতিবাদ মিছিলে হাঁটেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মিছিল শুরুর আগে মধ্যমগ্রামে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় নাম না করে কড়া সমালোচনা করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতির৷

অভিযোগ, গত ৬ জানুয়ারি নদিয়ার কৃষ্ণনগরে অভিনন্দন যাত্রা ছিল বিজেপির৷ মিছিল শেষে জেলাশাসকের অফিসের সামনে সভা করেন দিলীপ ঘোষ৷ সভা চলাকালীন তিনি যখন বক্তব্য রাখছিলেন, তখন একটি অ্যাম্বুল্যান্স সেখানে চলে আসে৷ মঞ্চ থেকে দিলীপ ঘোষ নির্দেশ দেন, অ্যাম্বুল্যান্স ঘুরিয়ে অন্য রাস্তা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য৷ এরপর চালক অ্যাম্বুল্যান্সটি ঘুরিয়ে নিয়ে যান৷ প্রকাশ্য সভায় বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের এই বক্তব্য ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ বিভিন্ন মহলে সমালোচনা শুরু হয়ে যায়৷ ইতিমধ্যেই ওই ঘটনায় দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে কৃষ্ণনগরের কোতয়ালি থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে৷

নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে লাগাতার আন্দোলনের ডাক দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ বৃহস্পতিবার মধ্যমগ্রামে প্রতিবাদ সভা করে তৃণমূল৷ সিএএ ও এনআরসির প্রতিবাদে শান্তিপূর্ণ পথে আন্দোলনের বার্তা দিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী৷ আন্দোলন করতে গিয়ে পথে অ্যাম্বুল্যান্স, দমকল ও অন্য জরুরিকালীন পরিষেবার গাড়ি গেলে সেই গাড়িকে আগে ছাড় দেওয়ার বার্তা দেন তৃণমূলনেত্রী৷ একইসঙ্গে আন্দোলনের নামে তাণ্ডব কখনই বরদাস্ত করা হবে না বলেও জানিয়েছেন মমতা৷

এই প্রসঙ্গেই দিলীপ ঘোষের নাম না করে তৃণমূলনেত্রী বলেন, ‘অ্যাম্বুল্যান্স আটকে অনেকে রাজনৈতিক সভা করে চলেছেন৷ মুমূর্ষু রোগী অ্যাম্বুল্যান্সে আটকে রয়েছেন৷ অথচ সেই অ্যাম্বুল্যান্সকে যেতে না দিয়ে অন্য পথ দিয়ে যাওয়ার নিদান দিচ্ছেন অনেকে৷’

যদিও, অ্যাম্বুল্যান্স আটকে সভা করা নিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনে যুক্তি দেখিয়েছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতিও৷ দিলীপ ঘোষের দাবি, ‘অ্যাম্বুল্যান্সটি ফাঁকা ছিল৷ গাড়ির মধ্যে কেউই ছিলেন না ৷ তাই অ্যাম্বুল্যান্সটি অন্য রাস্তা দিয়ে ঘুরিয়ে দেওয়া হয়েছে৷ বিরোধীরা ইচ্ছে করে ওই ফাঁকা অ্যাম্বুল্যান্সটি পাঠিয়েছিল সভা বানচাল করতে৷’