কলকাতা: ফের স্বীকৃতি বাংলার। দেশের প্রথম স্থানে পশ্চিমবঙ্গে। তাই শুভেচ্ছাবার্তা পোস্ট করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রতিকূলতার মধ্যেও রাজ্যের অগ্রগতিতে খুশি তিনি। বৃদ্ধির নিরিখে পশ্চিমবঙ্গের স্থান প্রথম। অর্থাৎ সার্বিক বৃদ্ধিতে দেশের মধ্যে এক নম্বরে বাংলা। আর এই বিষয়টি তিনি রবিবার সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন: বিজেপির পায়ে ধরব কিন্তু লোকে জানবে না, মমতাকে নজিরবিহীন আক্রমণ মুকুলের

সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টে মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, বৃদ্ধিতে পশ্চিমবঙ্গ একনম্বরে। ভারত সরকারের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরে রাজ্যের বৃদ্ধির হার ১২.৫৮ শতাংশ। যা দেশের মধ্যে সব থেকে বেশি।

এই প্রসঙ্গে তিনি দেশের কথাও উল্লেথ করেছেন। বলেছেন, দেশে মন্দার বাজার চলছে। কেন্দ্রের নীতির কারণেই তা হয়েছে বলেও উল্লেখ করেছেন। বলেছেন এই সময়ে দেশে বেকারত্বের হার ৪৫ বছরে সর্বোচ্চ। মুখ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, ২০১৮-১৯ আর্থিক বছরের চতুর্থ ভাগে জিডিপি বৃদ্ধি নেমে গিয়ে ৫.৮ শতাংশ হয়েছে।

আরও পড়ুন: বিজেপিকে রুখতে পুরোহিতদের ভাতা চালুর ঘোষণা তৃণমূলের

মুখ্যমন্ত্রী কেন্দ্রের বিলগ্নিকরণে পদক্ষেপের কথাও বলেছেন। অর্ডন্যান্স ফ্যাক্টরি বোর্ড, বিএসএনএল, চিত্তরঞ্জন লোকোমোটিভের কথা উল্লেখ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। মন্দার কারণে দেশের অটোমোবাইল শিল্পে যে ৩ লক্ষ চাকরি ছাঁটাই হতে চলেছে, সেই প্রসঙ্গও টেনে এনেছেন মুখ্যমন্ত্রী। কেন্দ্রের অ্যাজেন্ডার তালিকায় এখন শুধুই রাজনীতি রয়েছে বলেও অভিযোগ তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

এর আগে জনকল্যাণমূলক প্রকল্পে বাংলার সাফল্যের কথা জানিয়েছিলেন তিনি। কয়েকদিন আগেই কেন্দ্র জানায়, গ্রাম বাংলা এখন খোলা শৌচাগার মুক্ত। স্যোশাল মিডিয়ায় এমনটাই জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রত্যেক গ্রামবাসীর জন্য শৌচাগারের ব্যবস্থা করা গিয়েছে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি।

সকলের জন্য শৌচাগার সকলের জন্য শৌচাগার মিশন নির্মল বাংলা কর্মসূচির অধীনে রাজ্যের ১.৩৫ কোটি পরিবারকে শৌচাগার তৈরি করে দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যের এই সাফল্যকে মেনে নিয়েছেন বলেও জানান মমতা। ক্ষমতায় এসে সব পরিবারের জন্য শৌচাগার নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছিলেন তিনি। সেই টার্গেট সফল হওয়ায় খুশি মুখ্যমন্ত্রী। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি রাজ্যবাসীকে এর জন্য অভিনন্দনও জানিয়েছেন।