স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এনপিআর নিয়ে কেন্দ্রের ডাকা বৈঠকে থাকবে না তৃণমূল৷ বুধবার রানী রাসমনি রোডে টিএমসিপির ধর্ণামঞ্চ থেকে এই ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ কিন্তু এব্যাপারে চাঞ্চল্যকর মন্তব্য করেছেন সিপিএম নেতা মহ সেলিম৷ তাঁর দাবি, এনপিআরের বৈঠকে গোপনে প্রতিনিধি পাঠিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

জাতীয় জনসংখ্যা পঞ্জিকরণ নিয়ে কেন্দ্রের পাশেই কংগ্রেস শাসিত সব রাজ্য। ইতিমধ্যেই সবরাজ্যে বিজ্ঞপ্তি জারি হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু সেই তালিকায় নেই কেরল ও বাংলা। এর মধ্যেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুধবার ঘোষণা করেছেন ১৭ জানুয়ারি কেন্দ্রে এনপিআর-এর বৈঠকে যাবে না পশ্চিমবঙ্গ।

বুধবার তৃণমূল ছাত্র পরিষদের ধরনা মঞ্চে মমতা বলেন,”আগামী ১৭ তারিখ, শুক্রবার এনপিআর নিয়ে দিল্লিতে যে বৈঠক ডাকা হয়েছে, তাতে আমি যাচ্ছি না। বাংলা থেকে কোনও সচিব কিংবা আমলাও ওই বৈঠকে যাচ্ছেন না।’ সেই সঙ্গে তাঁর হুঙ্কার, ‘রাজ্যে একজন বিজেপির মুখপাত্র আছে। তিনি চাইলে সরকার ফেলে দিতে পারেন। সরকার ফেলে দিক। তবু যাব না।”

ধর্মতলার ধরনামঞ্চ থেকে বামেদের হুঁশিয়ারি দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আপনারা মিথ্যে বলছেন। এ বার আইন আইনের পথে চলবে। এক্ষেত্রে কড়া ব্যবস্থা নেবে সরকার।’ তাঁর কটাক্ষ, ‘মমতা শুধু অ্যালার্জি। সব ভোট তো বিজেপির বাক্সে তুলে দিয়ে এলেন। আজ আন্দোলন করবেন? কেউ বিজেপির বালিশ, কেউ কোলবালিশ।”

এদিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওই দাবি উড়িয়ে দিয়েছেন সিপিএম সাংসদ মহম্মদ সেলিম। ঠিক বলছেন না মমতা। সেলিম আরও বলেন, “এনপিআরের বৈঠকে মমতা প্রতিনিধি পাঠিয়েছেন। কোন ফ্লাইটে ওই প্রতিনিধি দিল্লি গিয়েছেন তা বলে দিতে পারব। এখন যখন ধরা হয়েছে তখন বলছেন, ওরা সেনসাসের মিটিং করবে। অথচ অমিত শাহ বলেছেন সেনসাস, এনপিআর মার্জ করা হয়েছে। একই প্রসেস।”